ব্যাটসম্যানদের সতর্ক করলেন ইমরুল

আমাদের নতুন সময় : 04/07/2015

Imrul-Kayes1_thereport24ক্রীড়া প্রতিবেদক : সফরকারী দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে শুক্রবার একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে (টোয়েন্টি২০) ৮ উইকেটে হেরেছে বিসিবি একাদশ দল। মূলত দক্ষিণ আফ্রিকান বোলাদের বিপক্ষে স্বাগতিক ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার কারণেই বাজেভাবে ম্যাচ হারতে হয়েছে বিসিবি একাদশকে। ফতুল্লার খান সাহের ওসমান আলী স্টেডিয়ামের এই ম্যাচে শেষে মিডিয়াকর্মীদের সামনে উপস্থিত হয়েছিলেন বিসিবি একাদশের নেতৃত্ব দেওয়া ইমরুল কায়েস। সেখানে মূল সিরিজে দক্ষিণ আফ্রিকান বোলারদের বিপক্ষে বাংলাদেশী ব্যাটসম্যানদের শুরুতে দেখেশুনে খেলার পরমার্শই দিয়েছেন ইমরুল। সঙ্গে তিনি এটাও বলেছেন যে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজটাকে যতটা কঠিন মনে করা হচ্ছে, বাস্তবে সিরিজটা ততটা কঠিন হয়তো হবে না।
ইমরুল বলেছেন, ‘দক্ষিণ আফ্রিকান বোলাররা ভারতীয় বোলাদের চেয়ে তুলনামূলক নিঁখুত বোলিং করে। তারা (দক্ষিণ আফ্রিকানরা) ভালই করেই জানে যে কোন জায়গায় বোলিং করতে হবে; কোন জায়গায় বোলিং করলে উইকেট পাওয়া যাবে, রান চেক দেওয়া যাবে। আমার মনে হয়, ব্যাটিংয়ে ২-১ ওভার দেখে তারপর নিজের প্ল্যান অনুযায়ী বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা খেলতে পারবে। আমার মনে হয় না যে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে কোনো সমস্যা হবে।’
বাংলাদেশের জন্য সিরিজটি কঠিন হবে কি না, এমন প্রশ্নে ইমরুল বলেছেন, ‘সিরিজটি ততটা কঠিন হবে না। ক্রিকেট হল মেন্টালগেম। সবাই যদি মানসিকভাবে ইতিবাচক থাকতে পারে, আমাদের জন্য ভাল হবে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে যারা খেলছে, তারা প্রত্যেকটি দলের বিপক্ষেই খেলছে। বাংলাদেশ দলে এখন অনেক বেশি পরিবর্তন এসেছে। সবাই ভাল খেলছে। আমাদের মানসিকতারও পরিবর্তন হয়েছে। আমার বিশ্বাস, সিরিজে ভাল কিছুই হবে।’
প্রস্তুতি ম্যাচে নিজেদের ব্যাটিং ইনিংসের শুরুতেই রনি তালুকদার ও এনামুল হক বিজয়ের বোল্ড আউট হওয়ার বিষয় দুটিকে ব্যাটসম্যানদের ভুল হিসেবে দেখতে নারাজ ইমরুল কায়েস। তার মতে, বল দুটি ভাল ছিল বলেই বিসিবি একাদশের এই দুই ব্যাটসম্যান বোল্ড আউট হয়েছে। এ প্রসঙ্গ ইমরুল বলেছেন, ‘ওদের বোলিং অনেক নিঁখুত। ওরা (রনি-এনামুল) যে বলে আউট হয়েছে, বল দুটি দারুণ ছিল; তারা মারতে গিয়ে আউট হয়নি। এমন বল সিরিজে আমাদেরকে অনেক বেশি মোকাবেলা করতে হবে।’
ম্যাচে হারের পিছনে ব্যাটিং ব্যর্থতাকেই দায়ী করেছেন ইমরুল কায়েস। তিনি বলেছেন, ‘আমরা আসলে সবাই তাড়াহুড়ো করেছি; পরিকল্পনা ছাড়া ব্যাটিং করেছি। আমাদের টপ অর্ডাররা ভাল একটি শুরু এনে দিতে পারলে ১৩০-১৪০ রানের টার্গেট দিতে পারতাম। সেক্ষেত্রে আমাদের বোলাররা স্বাচ্ছন্দ্যে বোলিং করার সুযোগ পেত।’
দক্ষিণ আফ্রিকার পেস আক্রমণ বাংলাদেশের জন্য এই সিরিজে চ্যালেঞ্জ কি না, এমন প্রশ্নে ইমরুল বলেছেন, ‘এমন চ্যালেঞ্জ সব সময়ই থাকে। বাংলাদেশ দল এই চ্যালেঞ্জ ওভার কাম করেছে। নতুন চ্যালেঞ্জটাও তারা ওভারকাম করবে।’
দীর্ঘদিন পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরা সোহাগ গাজীর বোলিং কেমন মনে হয়েছে? উত্তরে ইমরুল বলেছেন, ‘সোহাগ গাজী ঘরোয়া ক্রিকেটে ভাল পারফরম্যান্স করেই দলে সুযোগ পেয়েছে। অনেকদিন পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরলে একটু সমস্যা হয়। তবে এটাও চিন্তা করতে হবে যে সে (সোহাগ) কার বিপক্ষে বোলিং করেছে; সোহাগ ভিলিয়ার্সের বিপক্ষে বোলিং করেছে, যে কি না, বিশ্বের নাম্বার ওয়ান ব্যাটসম্যান।’




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]