দেশাত্ববোধে উদ্বুদ্ধ হয়ে বাজেট তৈরি করতে হবে

আমাদের নতুন সময় : 06/06/2018

কাজী শাহাজাদা

আমাদের মধ্যে সঠিক দেশপ্রেম আর নৈতিকতার কারণেই আজ আমরা পিছিয়ে রয়েছি। প্রত্যেকটা দেশে এক একটা আর্থিক বছর নির্ধারণ করা থাকে। এই আর্থিক বছরে সরকার তার দেশের ব্যয় ও আয়ের হিসেব পেশ করে থাকে। সরকার দেশের উন্নয়নের জন্য ব্যয়টাকে মূখ্য হিসেবে ধরে। যুক্তরাষ্ট্র ও জাপানের আর্থিক বছর শুরু হয় ১ অক্টোবর হতে, ভারতের আর্থিক বছর ১ এপ্রিল হতে আর বাংলাদেশের আর্থিক বছর শুরু হয় জুলাই মাসে আর শেষ হয় জুন মাসে। আমাদের জানা আছে, এপ্রিলের ১৪ তারিখ হতে বাংলা নববর্ষ শুরু হয়। আর বৈশাখ মানেই কাল বৈশাখীর ঝড়। আবহাওয়া পরিবর্তনের সাথে সাথে তাল মিলিয়ে এ বছর পহেলা বৈশাখ হতে বৃষ্টি শুরু হয়েছে। আর সেটা ক্রমান্বয়ে বৃদ্ধি পাচ্ছে। একটু বৃষ্টি হলেই ঢাকা শহরের জলাবদ্ধতা বৃদ্ধি পায় আর তার সাথে যুক্ত হয়েছে উন্নয়নের নামে রাস্তাঘাট খুড়াখুড়ি ও জনসাধারণের ভোগান্তি। আর সেই সাথে আমাদের ঠিকাদারদের হীন মানসিকতা। আমাদের ঠিকাদারেরা বর্ষার সময়ে কাজ করতে খুব ভালবাসে। সরকার প্রতিটি অর্থবছরের শুরুতে একটা বার্ষিক পরিকল্পনা করে থাকে, যাকে বলা হয় বার্ষিক উন্নয়ন পরিকল্পনা। (অহহঁধষ উবাবষড়ঢ়সবহঃ চষধহ) সংক্ষেপে এডিপি। সরকার এডিপি খাতে প্রতি বছর অনেক টাকা বরাদ্দ রাখে। এ বছর এটা এক লক্ষ কোটি টাকার ওপরে। কিন্তু দেখা যায় সরকারের বিভিন্ন দপ্তর বছরের ৯ মাস পার হওয়ার পরও অগ্রগতির হার ৩০-৩৫%। অপরদিকে বাকী ৩ মাসের মধ্যে অগ্রগতির হার বেড়ে দাড়ায় লেটার মার্কের ওপরে অর্থ্যাৎ ৮০% প্লাস। তাহলে কী দাড়ায়? ৩ মাসে এত বৈপ্লবিক পরিবর্তন কীভাবে সম্ভব। এবার আসি সাম্প্রতিক সময়ে ঢাকা শহরের কিছু চিত্র নিয়ে। আমরা কেন পাকিস্তানিদের ন্যায় জুলাই-জুন অর্থবছর পালন করব? আমরা কী পারি না নিজেদের সংষ্কৃতি অনুসারে অর্থবছর নির্ধারণ করে দেশত্ববোধে উদ্বুদ্ধ হয়ে সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা করতে? এর জন্য প্রয়োজন সদিচ্ছা আর দেশজ প্রেম। অযথা বরাদ্দকৃত টাকা খরচ করতেই হবে, এই মানসিকতা পরিহার করে বৈষম্যহীন সমাজ বিনির্মাণে আমাদেরকে একযোগ কাজ করা উচিত।
পরিচিতি : সাবেক শিক্ষার্থী, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, অর্থনীতি বিভাগ / মতামত গ্রহণ: নৌশিন আহম্মেদ মনিরা/ সম্পাদনা : মোহাম্মদ আবদুল অদুদ




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]