জনপ্রতিনিধিদের উপর শারীরিক নির্যাতনের ঘটনায় জনসংহতি সমিতির উদ্বেগ

আমাদের নতুন সময় : 21/06/2018

রফিক আহমেদ : পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি বান্দরবান জেলা কমিটি সভাপতি উছোমং মারমা ও সাধারণ সম্পাদক ক্যবামং মারমা সাবেক জনপ্রতিনিধিদের হয়রানি ও তাদের উপর শারীরিক নির্যাতনের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। গত ১৯ জুন রুমা বাজার সেনাক্যাম্প কমান্ডার ক্যাপ্টেন আফতাব কর্তৃক রুমা উপজেলার বিনাদোষে বর্তমান ও সাবেক জনপ্রতিনিধিসহ ৩ জনকে হয়রানি ও শারীরিক নির্যাতন করা হয়। গতকাল বুধবার এক যৌথ বিবৃতিতে জনসংহতি সমিতির নেতৃদ্বয় এ উদ্বেগের কথা জানান বলে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির বান্দরবান জেলা কমিটির তথ্য ও প্রচার সম্পাদক নিত্যলাল চাকমা জানান।
জনসংহতি সমিতির নেতৃদ্বয় জানান, গত ১৯ জুন বেলা আনুমানিক সাড়ে ৩ টার দিকে রুমা বাজার সেনা ক্যাম্পের কমান্ডার ক্যাপ্টেন আফতাবের নির্দেশে রুমা বাজার সেনাক্যাম্পের সদস্যরা ২নং রুমা সদর ইউপি বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগের রুমা উপজেলা সহ সভাপতি শৈমং মারমা (শৈবং), ২নং পাইন্দু ইউপি সাবেক চেয়ারম্যান ও পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি স[িজঞঋ নড়ড়শসধৎশ ংঃধৎঃ: }থএড়ইধপশ[জঞঋ নড়ড়শসধৎশ বহফ: }থএড়ইধপশমতি রুমা থানা শাখার সহ সভাপতি ক্যসাপ্রু মারমা ও সাংগঠনিক সম্পাদক ফ্রান্সিস ত্রিপুরাকে ক্যাম্পে ডেকে নিয়ে যায় এবং কমান্ডার নিজের তাদেরকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজের সাথে মধ্যযুগীয় কায়দায় নিজ হাতে বেদম প্রহার করে আহত করে এবং আনুমানিক রাত সোয়া ৯টার দিকে ছেড়ে দেয়।
উল্লেখ্য যে, আহত ব্যক্তিদেরকে হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসা নিতেও বারণ করা হয়। এই নিয়ে এলাকায় জনগণের মনে আতঙ্ক বিরাজ করছে। বিনাদোষে এহেন পৈশাচিক নির্যাতনের প্রতিবাদে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির বান্দরবান জেলা কমিটি গভীর উদ্বেগ ও তীব্র নিন্দা জানিয়েছে। সম্পাদনা : লুৎফুর রহমান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]