ঈশ্বরকে সময় দিন

আমাদের নতুন সময় : 24/06/2018

খোকন কোড়ায়া

ছোটবেলায় ধর্মক্লাসে কিছু প্রশ্ন-উত্তর শিখেছিলাম-
১. কে তোমাকে সৃষ্টি করেছেন?
উত্তর: ঈশ্বর আমাকে সৃষ্টি করেছেন।
২. ঈশ্বর কেন তোমাকে সৃষ্টি করেছেন?
উত্তর: পৃথিবীতে তাঁর পূজা, সেবা ও প্রশংসা করতে এবং মৃত্যুর পর তাঁর সঙ্গে অনন্ত সুখের স্বর্গরাজ্যে বাস করতে।
বস্তুত ঈশ্বর চান আমরা যেন তাঁর পূজা করি, সেবা করি ও প্রশংসা করি। কিন্তু আমরা কি তা করি ? চব্বিশ ঘন্টায় এক দিন, এরকম কয়েক হাজার দিন ঈশ্বর আমাদের উপহার দিয়ে থাকেন। প্রতিদিন আমরা কতটুকু সময় দেই ঈশ্বরকে? অনেকে বেশ সময় দেই, অনেকে একটু কম দেই আবার অনেকে একেবারেই সময় বের করতে পারিনা ঈশ্বরের জন্য। আমরা অনেকে মনে করি ঈশ্বরকে সময় দেয়া মানে শুধু প্রার্থনা করা। না, তা নয়। প্রার্থনার মাধ্যমে আমরা ঈশ্বরের পূজা ও প্রশংসা করতে পারি কিন্তু ঈশ্বরের সেবা করবো কিভাবে তিনিতো দৃশ্যমান নন। ‘যা কিছু তুমি করেছো অবহেলিত ভাইয়ের প্রতি, করেছো তাই আমার প্রতি’, হ্যাঁ, মানুষের সেবা করা মানেই ঈশ্বরের সেবা করা। অসুস্থ্য মানুষের সেবা করে, দরিদ্রদের আর্থিক সাহায্য করে , দুঃখী মানুষকে সান্তনা দিয়ে, নির্যাতিত মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে, অসহায়দের প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে আমরা ঈশ্বরের সেবা করতে পারি। আজকাল দেখা যায় অনেকেই সকাল/বিকেল নিয়মিত হাঁটেন, শরীরচর্চা করেন। খবর নিলে দেখা যাবে অনেকেই এই হাঁটাহাটি বা শরীরচর্চা শুরু করেন অসুস্থ হবার পর। ডায়াবেটিস, হাই ব্লাড প্রেসার, হাই কলেস্টেরল, হার্টের সমস্যা এসব ধরা পড়লেই আমরা সচেতন হই, হাঁটাহাটি করি, শরীরচর্চা করি, কায়িক পরিশ্রম করি। অবশ্য যারা বুদ্ধিমান তারা এসব শুরু করেন আগে থেকেই। ফলে অসুখ বিসুখ তাদের কাছ ঘেষতে পারে না। ঈশ্বরের বেলায়ও তাই। আমরা যখন ভালো থাকি, বিপদমুক্ত থাকি তখন ঈশ্বরকে আমরা ভুলে যাই। কিন্তু ঈশ্বরতো চান আমরা যেন তাঁর পূজা করি, সেবা করি ও প্রশংসা করি। তাই তার দিকে না তাকালে তিনিও সাময়িকভাবে আমাদের দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নেন। আর তখনি কোথা থেকে হুটহাট করে চলে আসে বিপদ-আপদ, অসুখ-বিসুখ, নানা রকম দুর্যোগ। তখন আমরা খেয়ে না খেয়ে প্রার্থনা করতে থাকি। ঈশ্বরকে ডাকতে থাকি অবিরত। কিন্তু এই কাজটি যদি আমরা আগেই করতাম তবে অনেক বিপদ থেকে রক্ষা পেতে পারতাম।
তাই আসুন প্রার্থনা করি, ঈশ্বরকে সময় দেই। শারীরিক, মানসিক ও আত্মিকভাবে সুস্থ থাকি এবং আনন্দময় জীবন যাপন করি। লেখক: সাহিত্যিক ও ব্যবসায়ী




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]