রাজনীতিবিমুখ বুদ্ধিজীবীর পাল ।

আমাদের নতুন সময় : 07/07/2018

মূল: ওতো রেনে কাস্তিও
অনুবাদ: আজফার হোসেন

একদিন জনতার মধ্যে সবচেয়ে সহজ-সরল মানুষ
আমার দেশের রাজনীতিবিমুখ বুদ্ধিজীবীদের
দাঁড় করাবেন প্রশ্নের মুখোমুখি!
তাদের জিজ্ঞাসা করা হবে-
তারা কি করছিল
যখন তাদের জাতি মরে যাচ্ছিল
ধীরে-ধীরে-ধীরে-ধীরে-ধুঁকে-ধুঁকে ক্ষুদ্র ও একাকী
আগুনের এক মোলায়েম শিখার মতো?
কেউই তাদের ঝকঝকে-ঝলমলে পোশাক নিয়ে, মধ্যাহ্নভোজের পর তাদের নাক ডাকা ঘুম নিয়ে
কেউই জানতে চাইবে না!
কেউই জানতে চাইবে না
দর্শনের শুণ্য তত্ত্ব নিয়ে তাদের নিষ্ফলা কসরতের কাহিনি,
কিংবা তাদের টাকা কামানো উচ্চ মার্গীয় এলেম;
তাদের প্রশ্ন করা হবে না গ্রিক পুরাণতত্ত্বে
তাদের জ্ঞানের বাহদুরি নিয়ে;
অথবা তাদের আত্মধিক্কার নিয়ে
যখন তাদের কেউ কেউ বরণ করতে থাকে কাপুরুষের মৃত্যু!
না, সম্পূর্ণ মিথ্যার ছায়ায় জন্ম নেয়া তাদের উদ্ভট যুক্তি নিয়ে কারও কোন আগ্রহ থাকবে না!
সেইদিন আমার দেশের সহজ-সরল মানুষেরা আসবেন
তারা আসবেন
তারা আসবেন
তারা আসবেন
যাদের কোন জায়গা ছিল না রাজনীতিবিমুখ উদাসীন বুদ্ধিজীবীর কেতাবে আর কবিতায়;
যারা প্রতিদিন রাজনীতিবিমুখ উদাসীন
বুদ্ধিজীবীদের জুগিয়েছেন
ভাত আর দুধ, রুটি আর ডিম
যারা ঐ সব বুদ্ধিজীবীর গাড়ি টেনেছেন প্রতিদিন,
যারা দেখে রেখেছেন ঐ সব বুদ্ধিজীবীর কুকুর আর বাগান-
তারাই জিজ্ঞাসা করবেন
তারাই বলবেন
তারাই আসবেন
তারাই বলবেন-
কি করেছিলে তোমরা, যখন গরীবেরা ভুগছিল?
যখন কোমলতা আর জীবন
ধীরে-ধীরে-ধীরে-ধীরে তাদের ভেতর আগুনের মত নিভে যাচ্ছিল?
আমার সুন্দর দেশের রাজনীতিবিমুখ বুদ্ধিজীবীর পাল,
তোমাদের কোন জবাব থাকবে না!
তখন তোমাদের জবানকে ঠুকরে খাবে নৈঃশব্দের শকুন!
তোমাদের দুর্দশা তোমাদের আত্মাকে
খুবলে খাবে
খুবলে খাবে
খুবলে খাবে
আর তোমরা বধির হবে-
লজ্জায়
লজ্জায়
লজ্জায়!




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]