• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » বাংলাদেশে ও চীনের গণমাধ্যম সম্পর্ক আরো বাড়ানো উচিৎ: তথ্যমন্ত্রী


বাংলাদেশে ও চীনের গণমাধ্যম সম্পর্ক আরো বাড়ানো উচিৎ: তথ্যমন্ত্রী

আমাদের নতুন সময় : 09/07/2018

তরিকুল ইসলাম: তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, চীন বাংলাদেশে বাংলা ভাষায় রেডিও অনুষ্ঠান প্রচার করে যা এ দেশে খুবই জনপ্রিয়। কিন্তু এসব কিছুর মধ্যে দুই দেশের মিডিয়া ও সাংবাদিকদের মধ্য সম্পর্ক পিছিয়ে আছে। বাংলাদেশ ও চীনের গণমাধ্যম সম্পর্ক আরো বাড়ানো উচিৎ। উভয় দেশের সাংবাদিকদের অভিজ্ঞতা বিনিময়ের প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ-চীন পর্যটন খাত বেশ সম্ভাবনার। উভয় দেশকে এই সম্ভাবনাকে কাজে লাগানোর চেস্টা অব্যাহত রাখতে হবে। পর্যটন খাত ক্রমবর্ধমান ভাবে এগিয়ে নিতে সফল প্রচেস্টার দিকে নজর দিতে হবে। গতকাল রোববার ঢাকাস্থ চীনের দূতাবাসে বাংলাদেশ-চীন গণমাধ্যমের সহযোগিতা বিষয়ক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন হাসানুল হক ইনু। তিনি বলেন, ওয়ান বেল্ট ওয়ান রোড খুবই চমৎকার প্রকল্প। বাংলাদেশকে এটি ইতিবাচকভাবে দেখা উচিত। কীভাবে এ সড়ক বাংলাদেশের অর্থনীতিতে আরো সমৃদ্ধ করবে তার কৌশল প্রণয়ন করতে হবে। দক্ষিণ এশিয়ার অন্যান্য দেশের সঙ্গে সম্পর্ক বজায় রেখে চীনের সঙ্গে বিসিআইএম ও সার্ক কীভাবে এক মঞ্চে কাজ করতে পারে তার কৌশল বের করা দরকার।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, অনেকদিন ধরে বাংলাদেশ ও চীনের বন্ধুত্ব। দুই দেশের সাংস্কৃতিক সম্পর্ক হাজার বছরের পুরোনো। চীন যখন বাংলাদেশকে কূটনৈতিক স্বীকৃতি দিল তারপর থেকে দুই দেশের সম্পর্ক তরতর করে এগিয়ে গেছে। এ সময়, রোহিঙ্গাদের বিষয়ে চীনের রাষ্ট্রদূত হিসেবে ঝাং জুও বলেন, এই বিষয়টি চীন খুবই গুরুত্ব দেয়। কিছুদিন আগে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই এবং বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী এ বিষয়ে ইতিবাচক আলোচনা করেছে। চীন মিয়ানমারে সংঘাত বন্ধ, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন এবং রাখাইন রাজ্যে আর্থসামাজিক উন্নয়ন করার কথা বারবার বলেছে। রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে বাংলাদেশ যে মানবিক আচরণ করছে তা প্রশংসাযোগ্য। সম্পাদনা: সিদ্ধার্থ দে

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]