বাংলাদেশ মেথডিস্ট চার্চ

আমাদের নতুন সময় : 26/08/2018

খ্রিস্টীয় দর্পণ ডেস্ক

 

১২ আগস্ট, ১৯৮৪ সালে রেভা. নিবারন দাশ (বিশপ) ১২জন খ্রিস্ট বিশ্বাসী সঙ্গে নিয়ে তার মহাখালী বাসভবনে মেথডিস্ট চার্চ শুরু করেন। গ্রাম অঞ্চলে গির্জা প্রসারিত করার কাজের সঙ্গে অনেক ব্যক্তি বাপ্তিস্ম গ্রহন করে। তীব্র আর্থিক সঙ্কট এবং খ্রিস্টধর্ম বিরোধী লোকবল শক্তিশালী ছিল, কিন্তু ধৈর্য এবং সহনশীলতা সঙ্গে রেখে গির্জা বৃদ্ধি এবং গির্জা প্রসারের ইচ্ছা, ভাষা, সংস্কৃতি এবং ধমের্র জন্য ঈশ্বরের রাজত্ব প্রসারিত করাই ছিল মেথডিস্ট চার্চের উদ্দেশ্য।

বাংলাদেশের উত্তরবঙ্গে দিনাজপুর, জয়পুরহাট, নওগাঁ এবং গাইবান্ধায় চার্চ গুলো অন্তর্ভুক্ত ছিল যেখানে বেশিরভাগই আদিবাসী জনগোষ্ঠী, সাঁওতাল, মাহালি, ওরাও, মুন্ডারি, মালো, পাহাড় সহ হাজার হাজার আদিবাসী লোকজন। এই অঞ্চলে যেসব খ্রিস্টভক্ত রয়েছে তারা সুসমাচারের প্রতি অত্যন্ত গ্রহণযোগ্য। অনেক হিন্দু দক্ষিণবঙ্গ অংশে বসবাস করে, বিশেষ করে গোপালগঞ্জ, খুলনা, যশোর, সাতক্ষীরা, নড়াইল ও ফরিদপুর জেলা। আমরা মানুষকে খ্রিস্টের রাজ্যে আসার জন্য এই অঞ্চলের লোকজনদের আহবান করেছি, এখন আমাদের এই এলাকার ১০০টির বেশি গির্জা আছে। অন্যান্য অঞ্চলে যেখানে গির্জা প্রসারিত হয়েছ ঢাকা, গাজীপুর, টাঙ্গাইল এবং ময়মনসিংহ ইত্যাদি।

বাংলাদেশ মেথডস্টরা কোরিয়ান বন্ধুদের প্রতি কৃতজ্ঞ, যারা তাদের আন্তরিক সহযোগিতা হাত বাড়িয়েছে। তাদের আন্তরিক ভালবাসা এবং আর্থিক সাহায্য ছাড়া বাংলাদেশে মেথডিস্ট চার্চের বৃদ্ধি অব্যাহত রাখা অসম্ভব ছিল।

মোট গির্জার সংখ্যা ১৮৫ টি, ১৮,৬৯৮ জন সদস্য। কামালপুরের একটি ধর্মীয় প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, কুমারান বাইবেল স্কুল, কুমারান মেথডিস্ট চার্চ দ্বারা পরিচালিত হয়। বর্তমানে মেথডিস্ট থিওলজিক্যাল সেমিনারী নামে স্কুলটি আপগ্রেড করা হয়েছে এবং বর্তমানে একটি তিন-স্তরের শিক্ষামূলক বিল্ডিং রয়েছে, যা শ্রেণীকক্ষ, ডরমিটরি, লাইব্রেরী, স্টাফ কোয়ার্টার এবং গেস্টরুমের ঘর আছে। ডরমেটরিটির আবাসন ক্ষমতা ৪৫ জন এবং শিক্ষার্থীদের জন্য ৩০ টিরও বেশি কোর্স প্রদান করা হয়। ১৯৯২ সাল থেকে ১২০ জন শিক্ষার্থী ডিগ্রি নিয়ে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন।

১৯৮৪ সাল থেকে একটি চার্চ তৈরি করা হয় এবং ধর্মপ্রচার করা হয়, এবং ১ জুলাই, ঢাকা কেন্দ্রীয় মেথডিস্ট চার্চ ভবনটির চার-চতুর্থাংশ পবিত্র করা হয়েছিল। শুধু কয়েক বছর আগে বিশপ নিবারন দাস একটি ছোট গির্জা একটি সাধারণ সাধারণ পালক ছিল কিন্তু ঈশ্বরের করুণা দ্বারা তিনি বৃহত্তম গির্জার একটি সিনিয়র যাজক হওয়ার জন্য নির্বাচিত হয়েছেন, এবং বৃহত্তম ধর্মপ্রাণ ও ধর্মভোগী এক বাংলাদেশ মেথডিস্ট চার্চের প্রথম বিশপ। সূত্র: ইন্টারনেট




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]