নৌকা প্রতীকে ভোট চেয়ে গ্রাম-গঞ্জ চষে বেড়াচ্ছেন অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ এমপি

আমাদের নতুন সময় : 09/11/2018

শামীম রেজা, (গোবিন্দগঞ্জ) গাইবান্ধা : আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গাইবান্ধা-৪ গোবিন্দগঞ্জ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ নৌকা মার্কার মনোনয়ন প্রত্যাশী। এজন্য দীর্ঘদিন ধরেই নির্বাচনী এলাকায় তিনি চালিয়ে যাচ্ছেন ব্যাপক গণসংযোগ, উঠান বৈঠক, পথসভা, কর্মীসমাবেশ ও কেন্দ্র ভিত্তিক মতবিনিময় সভা। তার সমর্থনে প্রায় প্রতিদিনই মোটর সাইকেল শোভাযাত্রা, মিছিল, মিটিং করছে নেতা-কর্মীরা। এসব গণসংযোগ, কর্মীসমাবেশ, পথসভা, শোভাযাত্রার মাধ্যমে তিনি সাধারণ মানুষের কাছে বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কার্মকা- তুলে ধরে ভোটারদের নৌকা মার্কায়  ভোট দেয়ার আহ্বান জানাচ্ছেন। স্বাধীনতার পর ১৯৭৩ সালে আওয়ামীলীগ প্রার্থী এ্যাড. শাহ জাহাঙ্গীর কবির, ১৯৭৯ সালে বিএনপি প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম, ১৯৮৬ সালে স্বতন্ত্র প্রার্থী লুৎফর রহমান চৌধুরী, ১৯৯১ ও ১৯৯৬ সালে জাতীয় পার্টি প্রার্থী লুৎফর রহমান চৌধুরী, ২০০১ সালে বিএনপি প্রার্থী আব্দুল মোত্তালিব আকন্দ, ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ প্রার্থী প্রকৌশলী মনোয়ার হোসেন চৌধুরী এবং ২০১৪ সালে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী আতাউর রহমান বেলাল, বিএনপির সংসদ সদস্য আব্দুল মোত্তালিব আকন্দের মৃত্যুর পর উপ নির্বাচনে শামীম কায়ছার লিংকন এবং ১৫ ফেব্রুয়ারির নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী আব্দুল মান্নান মন্ডল এমপি নির্বাচিত হয়েছেন। তবে একসময় জাতীয় পার্টির নির্ভরযোগ্য ঘাটি ছিল এ আসনটি। কারণ পর পর দুইবার জাতীয় পার্টি প্রার্থী সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। পরে চলে যায় বিএনপির দখলে। বর্তমানে রয়েছে আওয়ামী লীগের দখলে। বর্তমান এ আসনে আওয়ামী লীগের ভিত অনেক মজবুত ও সুসংগঠিত। আর এর পিছনে বর্তমান সভাপতি অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদের ব্যাপক অবদান রয়েছে । রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নকালেই ছাত্ররাজনীতির সাথে জড়িয়ে পড়েন তিনি।সম্পাদনা : টি এম হুদা, শাশ্বত।

 

 

অধ্যয়ন শেষে এলাকায় এসে স্থানীয় ফুলপুকুরিয়া কলেজের অধ্যক্ষের দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি রাজনীতিতে সক্রিয় হন। প্রথমে তিনি জাসদ- বাসদের রাজনীতির সাথে জড়িত থাকলেও ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগে যোগদান করেন। তিনি স্থানীয় গুমানীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের ২বার চেয়ারম্যান, বিআরডিবির চেয়ারম্যান, পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান  নির্বাচিত হন। পরে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন এবং  বিজয়ী হয়ে এমপি নির্বাচিত হন। ২০১৬ সালে আওয়ামী লীগের কাউন্সিলে তাকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত করা হয়। অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ বলেন, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় দ্বিধা বিভক্ত  আওয়ামী লীগকে সংগঠিত ও শক্তিশালী করেছি। তৃণমূল থেকে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ এখন শক্তিশালী। সেই সাথে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলাবাসীর সুখে দুঃখে আগেও ছিলাম, এখনও আছি। জনগণকে সাথে নিয়ে বিএনপি-জামায়াতের জ্বালাও-পোড়াও প্রতিহত করেছি। এখানে দলীয় কোন চাঁদাবাজি নেই। উন্নয়নও হয়েছে প্রচুর। রাস্তা-ঘাট, ব্রিজ-কার্লভাট, স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসা ও বিদ্যুতের ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। ব্যবসায়ীসহ সাধারণ মানুষ এখানে শান্তিতে রয়েছে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমিই নৌকা মার্কার মনোনয়ন পাওয়ার দাবিদার। এ কারণে দেশরতœ বঙ্গবন্ধু কন্যা  মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অবশ্যই আমাকে নৌকা মার্কার মনোনয়ন দিবেন এবং মনোনয়ন দিলে আল্লাহর রহমতে এবং নেতা-কর্মী ও জনগণের সহযোগিতায় বিপুল ভোটে জয়লাভ করব বলে আমি শতভাগ আশাবাদি। স্থানীয় আওয়ামী লীগ যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, শ্রমিকলীগ, ছাত্রলীগসহ অন্যান্য সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা জানায় আওয়ামী লীগে যোগদান করার পর থেকেই দ্বিধা বিভক্ত আওয়ামী লীগকে সুসংগঠিত এবং শক্তিশালী  করেছেন অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ। নেতা-কর্মীদের যথাযথ মুল্যায়ন ও সুখে দুঃখে পাশে থেকে সাহায্য সহযোগিতা করেছেন।

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : info@amadernotunshomoy.com