সুগন্ধি পছন্দ করতেন রাসূল সা.

আমাদের নতুন সময় : 09/11/2018

আমিন মুনশি

 

ইসলাম ধর্মটাই সুন্দর, তাই সৌন্দর্য্যই ইসলামকে সুশোভিত করেছে। ইসলামে মানবজীবনের প্রত্যেকটি বিষয়ে সুনির্দিষ্ট দিকনির্দেশনা রয়েছে। তেমনিভাবে সুগন্ধি ব্যবহারের ক্ষেত্রেও রয়েছে দিকনির্দেশনা।

মহানবী (সা.) পুরুষ ও নারীদের সুগন্ধির মধ্যে পার্থক্য করেছেন। হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেছেন, ‘পুরুষ এমন সুগন্ধি ব্যবহার করবে, যার মধ্যে সুবাস থাকবে। কিন্তু কোনো রং থাকবে না। আর নারী এমন সুগন্ধি ব্যবহার করবে, যার মধ্যে রং থাকবে, কিন্তু সুবাস থাকবে না।’ (তিরমিজি, হাদিস : ২৭১১) তবে নারীদের জন্য ঘরের মধ্যে যেকোনো ধরনের সুগন্ধি ব্যবহার করা বৈধ। সুগন্ধি হবে এমন যা থেকে মনোমুগ্ধকর সুবাস ছড়াবে। সুগন্ধির অনেক পরিভাষা রয়েছে যথাক্রমে মেশক, আম্বর, আতর, খুশবু ইত্যাদি। সুগন্ধি ফুলের নির্যাস, মৃগনাভি, সুরভিত তেল দিয়ে আতর তৈরি হয়। মেশক, আম্বর উত্তম সুগন্ধি।

রাসূল(সা.)যখন রাস্তা দিয়ে যেতেন সুগন্ধির সুঘ্রাণ চারদিকে ছড়িয়ে পড়তো। তখন মানুষ বুঝতে পারত যে, আল্লাহর রাসূল (সা.) এ পথ দিয়ে গেছেন। সুগন্ধি আতর রাসূল (সা.) এর অত্যন্ত প্রিয় ছিল। শুধু আমাদের নবীই সুগন্ধি পছন্দ করতেন তা নয়, অন্য নবীগণও এ সুগন্ধি পছন্দ করতেন। মুসলিম সমাজে সুগন্ধির আলাদা স্থান, কদর বা চাহিদা রয়েছে। হজরত আবু আইয়ুব আনসারি (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসূল (সা.) এরশাদ করেন, চারটি বস্তু সব নবীর সুন্নত- ‘আতর(সুগন্ধি), বিয়ে, মেসওয়াক ও লজ্জাস্থান ঢেকে রাখা।’ (মুসনাদে আহমাদ) রাসূল (সা.) সব সময়ই সুগন্ধি ব্যবহার করতেন। হজরত আয়েশা (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবী (সা.)-কে তার মুহরিম অবস্থায় নিজ হাতে খুশবু লাগিয়ে দিয়েছি এবং মিনাতে রওনা হওয়ার আগে আমি খুশবু লাগিয়েছি। (বোখারি)

হজরত আনাস ইবনে মালিক(রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবী করিম (সা.)এর কাছে এক ধরনের মিশ্রিত খুশবু ছিল, যা তিনি সুগন্ধি হিসেবে ব্যবহার করতেন। (মুসলিম)

আবু সাঈদ খুদরি (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূল (সা.) এরশাদ করেন, উত্তম সুগন্ধি হলো মেশক।(তিরমিজি)

আল্লাহর রাসূল(সা.)সাধ্যমতো অন্য মানুষকে সুগন্ধি ব্যবহারের নির্দেশ দিয়েছেন। হজরত আবু সাঈদ খুদরি (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূল (সা.) ইরশাদ করেন, জুমার দিন যথাসম্ভব তোমরা সুগন্ধি ব্যবহার করো। (নাসাঈ)

আমাদের দেশে উৎসব অনুষ্ঠানে বিশেষত ধর্মীয় অনুষ্ঠানে সুগন্ধি ব্যবহার করা হয়। যেটা হয় দুই ঈদ, সব-ই-বরাত, সব-ই-কদরসহ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যপূর্ণ অনুষ্ঠানে। ইসলামী বিধান অনুযায়ী নারীরা তার স্বামীর উপস্থিতিতে সুগন্ধি ব্যবহার করতে পারবে। বর্তমানে মানুষ বিভিন্ন রকমের পারফিউম ব্যবহার করে থাকে। এ ব্যাপারে ইসলামের নির্দেশনা হলো, যেসব পারফিউমে অ্যালকোহল আছে অথবা শরিয়ত সমর্থন করে না এমন বস্তু দ্বারা তৈরি পারফিউম ব্যবহার করা যাবে না।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : info@amadernotunshomoy.com