১৫ নভেম্বর রোহিঙ্গারা যাচ্ছে নাগরিকত্বের স্বীকৃতি না নিয়েই!

আমাদের নতুন সময় : 09/11/2018

দেবদুলাল মুন্না : ১৫ নভেম্বর থেকে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু হতে যাচ্ছে। প্রথম ধাপে ২ হাজার ২৬০ রোহিঙ্গা ফেরত পাঠানোর মাধ্যমে প্রত্যাবাসনের প্রক্রিয়া শুরু হবে। পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক জানান, বাংলাদেশ ও মিয়ানমার উভয় দেশ মিলে প্রত্যাবাসনের এ তারিখ নির্ধারণ করেছে। প্রত্যাবাসন বিষয়ে বাংলাদেশ অনেক আগেই জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থার সঙ্গে চুক্তি করেছে। পরবর্তী সময়ে মিয়ানমারও একই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে। বাংলাদেশ ইতোমধ্যে প্রাথমিক পর্যায়ে ফেরত পাঠানো হবে এমন রোহিঙ্গাদের একটি তালিকা মিয়ানমার ও জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থাকে হস্তান্তর করেছে। এ বিষয়ে সাবেক সেনা কর্মকর্তা ও শরণার্থী পরিস্থিতি বিশ্লেষক কেএম শামসুদ্দিন বলেন, ছয়জন স্থানীয় এবং তিনজন আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞ ব্যক্তিদের নিয়ে গঠিত কফি আনান কমিশন রোহিঙ্গাদের নাগরিক হিসেবে স্বীকৃতি প্রদানের সুপারিশে মিয়ানমারের ‘১৯৮২ নাগরিকত্ব আইনকে’ প্রধান বাধা হিসেবে চিহ্নিত করেছে। মিয়ানমারের ১৯৮২ সালের নাগরিকত্ব আইন রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশ থেকে আগত অবৈধ অভিবাসী হিসেবে শ্রেণীভুক্ত করেছে।

প্রত্যাবাসনের আগেই রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব প্রদানের প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে মিয়ানমার যদি ১৯৮২ সালের নাগরিকত্ব আইন সংশোধন করে দেখাতে পারত তাহলে প্রত্যাবাসনের পর কফি আনান কমিশনের সুপারিশ অনুযায়ী মিয়ানমারের নাগরিকত্ব দেয়া হবে এ কথার ওপর আস্থা রাখা যেত। সম্পাদনা : নুসরাত




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : info@amadernotunshomoy.com