মেয়েদের জন্য আলাদা স্কুল সমাজে সমতা আনে না

আমাদের নতুন সময় : 20/11/2018

এ. আর. ফারুকী : সমাজে নারী পুরুষ সমতা আনার জন্য নারীদের জন্য আলাদা স্কুল স্থাপন করা উচিৎ। কিন্তু এটি কখনো সমাজে সাম্য আনতে পারেনা। এটি খুবই হতাশাজনক এবং নারীর ক্ষমতায়নের আন্দোলকে ব্যর্থ করে দেওয়ার ক্ষমতাসম্পন্ন। দ্যা এইজ

নারীর জন্য আলাদা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চাই, এমন বিতর্কের হয় শুরু মূলত যখন সন্তান লালনপালন এবং সেবাদানের ছাড়াও বিজ্ঞান-প্রযুক্তি, প্রকৌশল এবং গণিতে নারীর আরো অংশগ্রহণ দরকার। তার পর থেকেই বলা হয় এসবক্ষেত্রে নারীর অংশগ্রহণ আরো বাড়ানোর জন্য আলাদা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দরকার। তবে এমনটা দাবি করা খুবই হতাশাজনক। শিক্ষার প্রত্যেকটা ক্ষেত্রে নারীর অংশগ্রহণ বাড়ানো ভালো ভালো তবে বছরে ২ লাখ নারীকে প্রকৌশলী বানানোই নারীর ক্ষমতায়ন নয়। সমাজের প্রত্যেকটা স্তর যেমন হাসপাতাল, কিন্ডারগার্টেন, চাইল্ডকেয়ারের মতো জায়গা; যেখানে নারী বিশাল কাজের বিনিময়ে অতি সামান্য বেতন এবং সম্মান পায় সেসব জায়গায় তাদের প্রাপ্য অধিকার নিশ্চিত করাই সমতা। কেবল নারীর বেতন বাড়িয়ে দেওয়ায় সমতা নয় বরং তার তাদের কাজের যথাযথ মূল্যায়ন করাই সমতা। বিদ্যমান অসমতাকে বজায় রেখে সমতা সম্ভব নয়।

একজন মেয়ে কেবল নারীদের স্কুলে কেন যায় এবং কেন বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, প্রকৌশল এবং গণিতকে শিক্ষার মূল লক্ষ্য হিসেবে না নিয়ে সহশিক্ষা হিসেবে নেয় তার কারন কেবল তার পরিবারের উপর নয় বরং তার পরিবারের পরিবেশ, বাড়িতে কি পরিমান বই আছে এবং বাড়িতে সান্ধ্য আলোচনায় কি কি বিষয় আলোচিত হয় তার উপর নির্ভর করে।

দুশ্চিন্তার কারন হলো, মেয়দের জন্য আলাদা স্কুল দরকার এমন ধারনা আমাদের মধ্যবিত্ত শ্রেণীতে পুরুষতন্ত্রের প্রভাবকে আরো নগ্নভাবে প্রকাশ করে দেয়। এর ফলে সামাজে বিশ্বাস জন্মাবে, নারীর শিক্ষার জন্য আলাদা স্কুলই একমাত্র সমাধান।

শিশুর সাফল্য নির্ভর করে মূলত তার পরিবারের আর্থ-সামাজিক অবস্থানের উপর। যদি বাবা মা সন্তানকে বিজ্ঞান বিষয়ক তথ্যচিত্র দেখায়, বই পড়তে দেয় চাঁদ তারা সম্পর্কে তাহলে সন্তান একদিন সে জায়গায় পৌছবে এবিষয়ে কোন সন্দেহ নেই ।   সম্পাদনা : আসিফুজ্জামান পৃথিল

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]