নবীর ঘরে ইহুদি মেহমান

আমাদের নতুন সময় : 07/12/2018

আবুল কাশেম ইয়াছিন

 

মদিনার এক সন্ধ্যায় বাতাসে ছড়িয়ে পড়লো আযানের সুর। মিনারের আল্ল­াহু ধ্বনি খেজুরের পাতা ভেদ করে পৌঁছে গেল অলিতে গলিতে। সাহাবিরা মসজিদে। সেজদা-তাসবিহ ও তেলাওয়াতে মগ্ন। নবী মুহাম্মদও তখন মসজিদে।

নবীর দরবারে এসে পৌঁছাল একদল মুসাফির। সন্ধ্যার এই অবেলায় নবীজি মুসাফিরদের মেহমানদারির আয়োজন করলেন। সাহাবিদের বললেন, যাও মেহমানদের যথাসাধ্য আপ্যায়ন করো, ওরা আমাদের অতিথি। রাসুল নিজেও একজন অতিথি ঘরে নিয়ে গেলেন।

আরবের রন্ধ্রে রন্ধ্রে সেসময় পাপের গন্ধ। পথিক মানেই ভয়-আতঙ্ক। লুটেরা-ডাকাত। সব ডর-ভয় উপেক্ষা করে দয়াল নবী অচেনা অজানা মেহমানদের আপ্যায়নে ব্যস্ত। রাসুল সা.-এর ঘরে সেই অতিথি ছিলো ইহুদি।

জেনে শুনেও নবীজি তাকে নিজ হাতে খাওয়ালেন। ইহুদি বলে কথা। মুহাম্মদকে বিপদে ফেলতে না পারলে আবার কেমন ইহুদি। সে মনে মনে ইচ্ছা করলো, ‘আজ আমি ঘরের সব খাবার একাই খাবো।’ ভাবনা ও কাজে মিলে গেল। একেবারে পেট পুরে খেলেন। নবীজি নিজেই তার বিছানা করলেন। ইহুদি মেহমান গা এলিয়ে দিলেন ঘুমের বিছানায়। গভীর রাত। নীরব নিস্তদ্ধ। ঘুম ভেঙে গেল অতিথির। একেতো মরু পথের দীর্ঘ ক্লান্তি, আবার খেয়েছেও গলা পর্যন্ত। এবার পেটে প্রচ- চাপ। কিন্তু এতো রাতে, অজানা অচেনা জায়গায় কোথায় যাবে ?

এমন সাতপাঁচ ভাবতে ভাবতে বিছানা নষ্ট করে ফেলেছে আগন্তুক। এবার ভয় পেয়ে গেল ইহুদি, মুহাম্মদ সা. মদিনার স¤্রাট। তার ঘরে এমন অপকর্ম! লোকটি ভয়ে পালিয়ে গেলো। ছুটে পালাচ্ছে সে যেদিকে দু’চোখ যায়। যদি মুহাম্মদের লোকেরা তাকে ধরে ফেলে এমন ভয়ে ছুটছে প্রাণপণে। এমনি সময় তার মনে হলো সে তলোয়ার ফেলে এসেছে মুহাম্মদের ঘরে।

সে সময় তলোয়ার ছাড়া ভ্রমণ কল্পনাই করা যায় না। কি করবে আগন্তুক? সিদ্ধান্ত নিলো আবার মদিনায় যাবে, তলোয়ার ছাড়া একমুহুর্তও অসম্ভব। চুপিচুপি মুহাম্মদ সা.-এর ঘরে এসে ঢুকেছে ইহুদি। মনে বড় ভয়! কি জানি কি হয়!

আরে! এ কি! কী দেখছে সে? ইহুদি মেহমান নিজের চোখকে বিশ্বাস করাতে পারছে না। রাসুল সা. নিজের হাতের লোকটির নষ্ট করে যাওয়া বিছানা ধুয়ে দিচ্ছেন। চেহারায় রাগের চিহ্ন নেই।

রাসুল সা. তাকে দেখে ছুটে এসেছেন তার কাছে। তাকে বলতে লাগলেন- ও ভাই! আমার ভুল হয়ে গেছে, রাতে তোমার খোঁজ নিতে পারিনি, আমার জন্য তুমি অনেক কষ্ট করেছো। আমাকে মাফ করে দাও!

ইহুদি ভাবতেও পারছে না এমনটা। মানুষ বুঝি এমন হয়। তাও রক্ত মাংসে গড়া মানুষ! মানবিক মানুষের উপমা। ইহুদি মেহমান এবার মাথা নুইয়ে দিলেন নবীজির কাছে। সমকণ্ঠে উচ্চারণ করলেন- ‘আশহাদু আল্লাহ ইলাহা ইল্লাল্ল­াহু মুহাম্মাদুর রাসুলুল্ল­াহ।’ ওগো আল্ল­াহর নবী, আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি; আল্ল­াহ এক-আপনি আল্ল­াহর রাসুল।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]