৯ বছর বয়সেই পেশাদার ‘গো’ খেলোয়াড় জাপানের স্কুলছাত্রী

আমাদের নতুন সময় : 09/01/2019

লিহান লিমা : মাত্র ৯ বছর বয়সেই সবচেয়ে কমবয়সী পেশাদার ‘গো’ খেলোয়াড় হিসেবে নাম লিখিয়েছে জাপানের ওসাকা শহরের স্কুলছাত্রী সুমিরা নাকামুরা। আগামী এপ্রিল মাসে প্রাইমারি থেকে জুনিয়র হাইস্কুলে যাওয়ার সময়ে সুমিরা যখন আনুষ্ঠানিক ভাবে ‘বোর্ড স্ট্র্যাটেজি গেমে’ পেশাদার তকমা পাবে, তখন তার বয়স হবে ১০। বিবিসি।
এর আগে জাপানেরই গো-খেলোয়াড় রিনা ফুজিসাওয়া সাড়ে ১১ বছর বয়সে পেশাদার তকমা পেয়ে রেকর্ড গড়েছিলেন। ৯ বছর আগেকার সেই রেকর্ড এবার সুমিরা ভাঙতে চলেছে।
সুমির বাবা শিনয়াও পেশাদার ‘গো’ খেলোয়াড়। তিনি ১৯৯৮ সালে জাপানের জাতীয় চাম্পিয়নের শিরোপা পেয়েছিলেন। নিজের মেয়ের এই সাফল্যে আপ্লুত তিনি। এদিকে গো-এর মতো জটিল মনস্তাত্ত্বিক খেলায় পেশাদার হওয়ার যোগ্যতা অর্জন করা সুমিরা বলছে ‘জিতলে আমি খুশি হই। জুনিয়র হাইস্কুলে যাওয়ার আগে আমি আরও একটা খেতাব জিততে চাই।’
কয়েক হাজার বছর আগে চীনে গো খেলার উৎপত্তি। পরবর্তী কালে পূর্ব-এশিয়ার দেশগুলিতে দাবার ধাঁচের এই খেলা জনপ্রিয়তা পায়। দুজন খেলোয়াড় অনেকটা দাবার মতোই একটি বোর্ডে একজনের পর আরেকজনের সাদা ও কালো ঘুঁটির চাল দেন। কেউ যদি কোন গুটিকে বন্দি করে তাহলে সেটি তার দখলে চলে আসবে। ঘুঁটি চেলে প্রতিপক্ষের এলাকা ঘিরে প্রাধান্য প্রতিষ্ঠাতেই জয় আসে। এখানে একজন খেলোয়াড় ২০০ বার চাল দিতে পারেন। ফলে কে জিততে যাচ্ছে সেটা অনুমান করা বেশ কঠিন। সম্পাদনা : নুসরাত শরমীন




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]