আ’লীগের ৪৩ আসনের জন্য ২শ’ নেত্রীর দৌড়ঝাঁপ

আমাদের নতুন সময় : 11/01/2019

আসাদুজ্জামান সম্রাট : একাদশ জাতীয় সংসদের ৫০টি সংরক্ষিত নারী আসনের মধ্যে ৪৩টিই পেতে যাচ্ছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। আর বিরোধী দল জাতীয় পার্টি পাবে ৪টি। সরকারি দলের ৪৩টি আসনের বিপরীতে সারাদেশে দুই শতাধিক নারী চেষ্টা-তদ্বির চালাচ্ছেন। প্রতিদিনই সরকারি দলের শীর্ষ নেতা এবং নবনিযুক্ত মন্ত্রীদের বাড়ি ও দপ্তরে  ভিড় বাড়ছে এই নেত্রীদের।

আইন অনুযায়ী, সংসদের ৩০০ আসনের মধ্যে যে দল যতটি আসন পেয়েছে, তার আনুপাতিক হারে ৫০টি আসন দলগুলোর মধ্যে ভাগ করে দেয়া হবে। এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ২৫৭টি আসন পেয়েছে। এই হিসাবে তারা পাবে ৪৩টি আসন। জাতীয় পার্টি পেয়েছে ২২টি আসন। এর বিপরীতে তারা পাবে ৪টি নারী আসন। বিএনপির নেতৃত্বাধীন ঐক্যফ্রন্ট পেয়েছে ৮টি আসন। এই অনুপাতে তারা পাবে ১টি আসন। বাকি ২টি আসন পাবে অন্য দলগুলো।

আওয়ামী লীগের দুই শতাধিক নেত্রী সংরক্ষিত মহিলা আসনে এমপি হতে জোর তৎপরতা শুরু করেছেন। মন্ত্রিসভার মতো সংসদেও আগে দু’একবার সংরক্ষিত নারী আসনের সদস্য ছিলেন এমন কাউকে আর আনা হচ্ছে না। সারাদেশের জেলা কোটা অনুযায়ী নারী আসনও সমবণ্টন করা হবে। তবে রাজনীতির বাইরে বিভিন্ন পেশার আলোকিত নারীকে দেখা যেতে পারে সংরক্ষিত আসনে।

নারী আসনে মনোনয়নের জন্য আলোচিত নারীদের মধ্যে অন্যতম হলেন, আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক সম্পাদক শাম্মী আহমেদ, শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক শামসুন নাহার চাঁপা, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যাবিষয়ক সম্পাদক রোকেয়া সুলতানা, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ সদস্য পারভীন জামান কল্পনা ও মারুফা আক্তার পপি। এছাড়াও মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাফিয়া খাতুন, সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা বেগম কৃক, ঢাকা মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক শবনম জাহান শিলা, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি সাবেরা বেগম, সাধারণ সম্পাদক নারগিস রহমান, সহ-সভাপতি শিরিন ইসলাম, যুব মহিলা লীগের সহ-সভাপতি পারভীন খায়ের, ইডেন কলেজের সাবেক নেত্রী নূরজাহান আক্তার সবুজ সংরক্ষিত আসনে মনোনয়ন পেতে পারেন।

এছাড়া ঢাকা-৪ আসনের মনোনয়নবঞ্চিত সানজিদা খানম, পিরোজপুর-১ আসনের মনোনয়ন বঞ্চিত  শেখ এ্যানি রহমান, বরিশাল-৫ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য জেবুন্নেসা আফরোজ, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেনের স্ত্রী জাকিয়া পারভীন খানম, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি প্রয়াত এমএ আজিজের স্ত্রী রাবেয়া আজিজ, প্রধানমন্ত্রীর সাবেক বিশেষ সহকারী প্রয়াত মাহবুবুল হক শাকিলের স্ত্রী নীলুফার আনজুম পপি, মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি তাহমিনা সিদ্দিকী, সাবেক ছাত্রলীগ নেত্রী আদেলী এদিব খান, নাট্যাভিনেত্রী শমী কায়সার, অপু বিশ্বাস এবং শহীদ বুদ্ধিজীবী ডা. আলীম চৌধুরীর মেয়ে ডা. নুজহাত চৌধুরীর নাম আলোচিত হচ্ছে।

এছাড়া পুরোনোদের মধ্যে চেষ্টা চালাচ্ছেন সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা, ফরিদুন্নাহার লাইলী, মাহজাবিন খালেদ বেবী, নূরজাহান বেগম মুক্তা, ফজিলাতুননেসা বাপ্পি, আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী। এদের মধ্য থেকে দু’একজনকে রাখা হতে পারে। সম্পাদনা : সালেহ্ বিপ্লব




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]