কর্ম করে খেতেন নবী-রাসুলগণ

আমাদের নতুন সময় : 11/01/2019

আবুল কাশেম ইয়াছিন

 

সব যুগের নবী-রাসুলের কোনো না কোনো পেশা ছিল, তারা কখনও অন্যের ওপর মুখাপেক্ষী হয়ে থাকতেন না। বরং স্ব-উপার্জিত জিনিস ভক্ষণ করাকে পছন্দ করতেন। মহানবী (সা.)-কে প্রশ্ন করা হয়েছিল, কোন ধরনের উপার্জন উত্তম ও শ্রেষ্ঠ? তিনি বলেন, ব্যক্তির নিজ হাতে কাজ করা এবং সৎ ব্যবসা। (সুয়ুতি আদ দুররুল মানসুর, খ- ৬, পৃষ্ঠা ২২০) অন্যত্র রাসুল (সা.) বলেন, ‘হালাল রুজি অর্জন করা ফরজের পর আরেকটি ফরজ।’ (সহিহ বুখারি ও মুসলিম)

আদম (আ.) ছিলেন একজন কৃষক। তার ছেলেদের পেশাও ছিল চাষাবাদ। তা ছাড়া তিনি তাঁতের কাজও করতেন। কারো কারো মতে, তার পুত্র হাবিল পশুপালন করতেন। কৃষিকাজের যন্ত্রপাতির নাম আল্লাহ তায়ালা তাকে শিক্ষা দিয়েছেন। যেমন, আল্লাহর বাণী, ‘আর আল্লাহ আদমকে সব নামের জ্ঞান দান করেছেন।’ (সুরা : বাকারা, আয়াত : ৩১)

শিস (আ.)ও কৃষক ছিলেন। তাঁর পৌত্র মাহলাইল সর্বপ্রথম গাছ কেটে জ্বালানি কাজে ব্যবহার করেন। তিনি শহর, নগর ও বড় বড় কেল্লা তৈরি করেছেন। তিনি বাবেল শহর প্রতিষ্ঠা করেছেন। (ইবনে কাসির)

ইদরিস (আ.)-এর পেশা ছিল কাপড় সেলাই করা। নুহ (আ.) ছিলেন কাঠমিস্ত্রি। হুদ (আ.)-এর পেশা ছিল ব্যবসা ও পশুপালন। ব্যবসা ও পশুপালন করে তিনি জীবিকা নির্বাহ করতেন।

সালেহ (আ.)-এর পেশাও ছিল ব্যবসা ও পশু পালন। লুত (আ.)-এর স¤প্রদায়ের লোকেরা চাষাবাদের সঙ্গে জড়িত ছিল। ইবরাহিম (আ.) জীবিকা নির্বাহের জন্য কখনো ব্যবসা, আবার কখনো পশু পালন করতেন। ইসমাইল (আ.) পশু শিকার করতেন। তিনি ও তাঁর পিতা উভয়ই ছিলেন রাজমিস্ত্রি।

ইয়াকুব (আ.)-এর পেশা ছিল ব্যবসা, কৃষিকাজ করা ও পশু পালন। ইউসুফ (আ.) রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব পালন করেন। তিনি বেতন হিসেবে রাষ্ট্রীয় অর্থগ্রহণ করতেন। শোয়াইব (আ.)-এর পেশা ছিল পশু পালন ও দুধ বিক্রি। তাঁর কন্যারা চারণভূমিতে পশু চরাতেন।

দাউদ (আ.) ছিলেন রাজা ও নবী। সোলায়মান (আ.) ছিলেন সমগ্র পৃথিবীর শাসক ও নবী। মুসা (আ.) ছিলেন একজন রাখাল। হারুন (আ.)-এর পেশাও ছিল পশুপালন। ইলিয়াস (আ.)-এর পেশাও ছিল ব্যবসা ও পশু পালন। আইউব (আ.)-এর পেশা ছিল গবাদি পশু পালন। ইউনুস (আ.)-এর গোত্রের পেশা ছিল চাষাবাদ। কারো কারো মতে, তাঁর পেশাও ছিল চাষাবাদ। জাকারিয়া (আ.) ছিলেন কাঠমিস্ত্রি। জুলকিফল (আ.)-এর পেশা ছিল পশু পালন। ঈসা (আ.)-এর পেশা ছিল ব্যবসা ও পশু পালন।

মহানবী (সা.) ছিলেন একজন সফল ও সৎ ব্যবসায়ী। তিনি গৃহের কাজ নিজ হাতে করতেন। বকরির দুধ দোহন করতেন। নিজের জুতা ও কাপড় সেলাই ও ধোলাই করতেন, ঘর ঝাড়ু দিতেন। মসজিদে নববী নির্মাণকালে শ্রমিকের মতো কাজ করেছেন। খন্দকের যুদ্ধে মাটি কেটেছেন। বাজার থেকে প্রয়োজনীয় দ্রব্য ক্রয় করতেন।

নবী-রাসুলদের চিরন্তন বৈশিষ্ট্য এই যে, বৈষয়িক ধন-সম্পদের প্রতি তাদের কোনো আকর্ষণ ছিল না। তথাপি যেহেতু তারা মানুষ ছিলেন, সেহেতু বৈষয়িক প্রয়োজনে যতটুকু জীবিকা নির্বাহের জন্য প্রয়োজন, ততটুকু সম্পদ অর্জনে বিভিন্ন পেশা গ্রহণ করেছেন। বলা বাহুল্য, মহানবী (সা.)-এর সাহাবিদের অনেকেই ব্যবসা করতেন। বিশেষ করে মুহাজিররা ছিলেন ব্যবসায়ী আর আনসাররা ছিলেন কৃষক।

 

 

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]