• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » ডাকসু নির্বাচন : ১০ কার্যদিবসের মধ্যে প্রস্তাবনা দেয়ার নির্দেশ


ডাকসু নির্বাচন : ১০ কার্যদিবসের মধ্যে প্রস্তাবনা দেয়ার নির্দেশ

আমাদের নতুন সময় : 11/01/2019

রিয়াজ হোসেন : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচন আয়োজনের অংশ হিসেবে দীর্ঘদিন অকার্যকর থাকা গঠনতন্ত্র যুগোপযোগী করতে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে সক্রিয় ছাত্র সংগঠনগুলোর সাথে বৈঠকে করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বৈঠকে আগামী সোমবারের মধ্যে সব সংগঠনের প্রতিনিধিদের কাছ থেকে গঠনতন্ত্র সংশোধনী বিষয়ে লিখিত প্রস্তাবনা দেয়ার জন্য বলা হয়েছে। ডাকসু নির্বাচন আয়োজনে উদ্যোগের অংশ হিসেবে সংবিধান সংশোধন কমিটিকে ১০ কার্যদিবসের মধ্যে সব সংগঠনের সাথে কথা বলে প্রস্তাবনা দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

গতকাল সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনের কনফারেন্স হলে বৈঠকটিতে ১৩টি ছাত্র সংগঠনের প্রতিনিধিরা অংশ নেয়।

বৈঠক শেষে ডাকসু গঠনতন্ত্র সংশোধন কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক মিজানুর রহমান বলেন, সর্বশেষ ১৯৯৮ সালে ডাকসুর গঠনতন্ত্র সংশোধন করা হয়েছিল। এরপর আর ডাকসুর কোনো নির্বাচন হয়নি। যেহেতু বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন দ্রুত সময়ের মধ্যে ডাকসু নির্বাচন করতে বদ্ধপরিকর, সেজন্য এই কমিটি কাজ করছে।

তিনি বলেন, গঠনতন্ত্র সংশোধন নিয়ে  ছাত্র সংগঠনের সঙ্গে আলোচনা শেষ হয়েছে। নির্বাচনে নিয়মিত শিক্ষার্থীরা প্রার্থী ও ভোটার হতে পারবেন বলে মতামত দিয়েছেন ছাত্র সংগঠনগুলোর নেতারা।

বৈঠক শেষে ছাত্রদল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি আল মেহেদী তালুকদার বলেন, আমরা চাই নির্বাচনের আগে সব ছাত্র সংগঠনের জন্য সহাবস্থান নিশ্চিত হোক। সহাবস্থান নিশ্চিত না হলে আমরা নির্বাচনে অংশগ্রহণ নাও করতে পারি। গঠনতন্ত্র সংশোধন বিষয়ে তিনি বলেন, প্রার্থীদের বয়সসহ অনেকগুলো বিষয় যুগোপযোগী করা দরকার।

ঢাবি ছাত্রলীগ সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস বলেন, আমরা আমাদের প্রস্তাবনা তুলে ধরেছি। আমরা চাই, সকল সংগঠন নির্বাচনে অংশগ্রহণ করুক। সহাবস্থানের বিষয়ে তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মিত শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে আসছেন, আড্ডা দিচ্ছেন, কেউতো তাদের বাধা দিচ্ছে না।

ঢাবি সংসদের সভাপতি ফয়েজ উল্ল্যাহ বলেন, আমাদেরকে ১৯৯১ এর গঠনতন্ত্র দেয়া হয়েছে। যেখানে অনিয়মিত শব্দটা রয়েছে। কিন্তু ১৯৯৮ এ গঠনতন্ত্র সংশোধন করা হয়েছে। আমরা সব বিষয় বিশ্লেষণ করেছি।

ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি উম্মে হাবিবা বেনজীর বলেন, ডাকসুর বর্তমান গঠনতন্ত্রে সভাপতিকে একচেটিয়া ক্ষমতা দেয়া হয়েছে। এতে পদাধিকার বলে সভাপতি (উপাচার্য) নির্বাচিত প্রতিনিধিকে বহিষ্কার করতে পারবেন।  আমরা বিষয়গুলোর পরিবর্তনে প্রস্তাবনা রেখেছি। পাশাপাশি যেহেতু দীর্ঘদিন নির্বাচন হয়নি, তাই আমরা একটি নির্দিষ্ট সেশন পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার সুযোগ দেয়ার বিষয়টি তুলে ধরেছি। সম্পাদনা : আবদুল অদুদ

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]