দ্বীন শিক্ষার উদ্দেশ্য

আমাদের নতুন সময় : 11/01/2019

আবু আখতার

 

দৈনন্দিন জীবনে ইসলাম অনুযায়ী চলার জন্য প্রয়োজনীয় পরিমাণ দ্বীনি শিক্ষা অর্জন করা প্রত্যেকের মুসলমানের জন্য আবশ্যক। এ ক্ষেত্রে কারো অবহেলার কোন সূযোগ নেই।

মুসলিম সমাজের কিছু লোক দ্বীনি শিক্ষার বিষয়ে বিশেষজ্ঞ হলে সকলে ফরজ আদায়ের দায়িত্ব হতে মুক্তি পেয়ে যাবে পক্ষান্তরে কেউ এ দায়িত্ব পালন না করলে সকলে ফরজ আদায় না করার জন্য কঠিন গোনাহগার হবে।

বিভিন্ন দৃষ্টিকোণ হতে জ্ঞান অর্জন বিভিন্ন প্রকার হয়ে থাকে। ইলম প্রধানত দুই প্রকার: দ্বীনি ইলম ও দুনিয়াবি ইলম। দুনিয়াবি ইলম মানুষ দুনিয়ার বিভিন্ন প্রয়োজন পূরণের উদ্দেশ্যে অর্জন করে। যেমন ডাক্তারি শিক্ষা চিকিৎসাসেবার উদ্দেশ্যে, ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষা দালানকোঠা ও ইমারত নির্মাণের কলাকৌশল শিক্ষার উদ্দেশ্যে করা হয়। আর দ্বীনী  ইলম অর্জনের উদ্দেশ্য কি হওয়া উচিত এ সম্পর্কে আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘আর সমস্ত মুমিনের অভিযানে বের হওয়া সঙ্গত নয়।

তাই তাদের প্রত্যেক দলের একটি অংশ কেন বের হয় না, যাতে দ্বীনি ইলমে পান্ডিত্য লাভ করে এবং স্বজাতিকে সতর্ক করে যখন তারা তাদের কাছে প্রত্যাবর্তন করবে, যেন তারা বাঁচতে পারে।’ (সুরা তওবাঃ ১২২)

এ সম্পর্কে হজরত আবু হুরায়রা রা. বলেন, ‘রাসূলুল্লাহ (সা) বলেছেন- যে শিক্ষা দ্বারা আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জন করা যায়, কেউ সে শিক্ষা দুনিয়াবী স্বার্থোদ্ধারের উদ্দেশ্যে অর্জন করলে কিয়ামাতের দিন সে জান্নাতের সুঘ্রাণও পাবে না।’ (সুনানে আবু দাউদঃ ৩৬৬৪)




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]