• প্রচ্ছদ » » পলিটিক্সে হেরে গেছেন খালেদা জিয়া- এখন বাংলাদেশে গণতন্ত্রের তেমন প্রয়োজন নেই- আওয়ামী লীগ অংক করতে ভুল করে না


পলিটিক্সে হেরে গেছেন খালেদা জিয়া- এখন বাংলাদেশে গণতন্ত্রের তেমন প্রয়োজন নেই- আওয়ামী লীগ অংক করতে ভুল করে না

আমাদের নতুন সময় : 11/01/2019

মাহফুজুর রহমান

১. পলিটিক্সে হেরে গেছেন খালেদা জিয়া। অথচ তিনি এরশাদের আমলে কতো আরামেই না ছিলেন। পলিটিক্স কঠিন জিনিস, ক্ষমতার জন্য সবাই সবার প্রতিপক্ষ হয় এখানে, রক্তের বন্ধনের আবেগও এখানে অচল। এখানে শুধুই ক্ষমতা, ধর্ম-বর্ণ এসব অকার্যকর।
আমাদের প্রথিতযশা বুদ্ধিজীবীদের বুদ্ধির ঘাটতি আছে, তারা মিসগাইড করেছেন বেগম জিয়াকে। এখন সেই বুদ্ধিজীবীদের ভোল পাল্টে দিতে হবে, নয় নিষ্ক্রিয় হয়ে ঘরে থাকতে হবে। তারা বেগম জিয়া ও বিএনপিকে সাপোর্ট করার অর্থই শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের সঙ্গে শত্রুতা করা সমান বিষয়। তারা যদি সঠিক বুদ্ধিজীবী হতো তা হলে আওয়ামী লীগ সরকারে ও বিএনপি বিরোধী দলে থাকার কথা বলতেন না।
বাম নেতাদের অবস্থাও খারাপ হবে। কারণ আওয়ামী লীগ ভালোই জানে যে ’৭৫ সালের পূর্ববর্তী রাজনৈতিক অবস্থা খারাপের জন্য দায়ী কারা, তখন তাদের ভূমিকা কী ছিলো। শুধু সময় অপেক্ষা করছে তাদের চার্জে আনতে। সেই পর্যন্ত তারা যদি বেঁচে থাকেন।
২. বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর ইব্রাহীম খালেদ বলেছেন, উন্নয়নের স্বার্থে শেখ হাসিনা যদি সীমিত গণতন্ত্র দিয়ে মাহাথিরের মতো সর্বক্ষেত্রে সুশাসন ফিরিয়ে আনেন তাহলে আমার আপত্তি নেই। আমরাও ইব্রাহীম স্যারের সঙ্গে একমত। এখন বাংলাদেশে গণতন্ত্রের তেমন প্রয়োজন নেই। যা করলে মানুষ খুশি হবে তা হলো সুশাসন কায়েম ও উন্নয়ন।
শেখ হাসিনার ভাগ্য যে এরশাদের মতো মধ্যপন্থি একজন রাজনীতিকে বিরোধী দলের আসনে পেয়েছেন। জাতীয় পার্টির রাজনীতিও যেহেতু গঠনমূলক, এটা কাজে লাগিয়ে শেখ হাসিনা রাষ্ট্রকে মালয়েশিয়া মডেল অনুসরণ করে উন্নয়ন করুন, আমাদের এতে কোনো আপত্তি নেই। গণতন্ত্রের চেয়ে মাথাপিছু আয় বাড়ানোর ব্যবস্থা করেন, দলীয় নেতাকর্মীদের চাঁদাবাজি করে মাথাপিছু আয় বাড়ানোর কথা ভাবলে মানুষ আপনার দুই নম্বরি ভোটের কথা বারে বারেই বলবে।
৩. আমি আগেই বলেছিলাম যে, আওয়ামী লীগ থাকতে জাতীয় পার্টির কোনো চিন্তা নেই। হাসিনা থাকতে এরশাদের কোনো চিন্তা নেই আর এরশাদ থাকতে হাসিনার কোনো চিন্তা নেই। দোহের তরে দুজনে। কিন্তু অনেকেই বলেছিলেন যে, মঞ্জুর হত্যার মামলা চালু হবে। তখন আমি বলেছিলাম, এরশাদ না থাকলে হাসিনা চলবেন কীভাবে? আসলে দুই ভাই-বোনের মধ্যে একটি অসাধারণ কেমিস্ট্রি আছে। দুই দলের মধ্যেও আছে।
আমি বলেছিলাম যে, আওয়ামী লীগ সরকারে ও জাতীয় পার্টি থাকবে বিরোধী দলে। তখন অনেকেই তা বিশ্বাস করেনি। তারা বলেছে যে আওয়ামী লীগ সরকারে ও বিএনপি বিরোধী দলে থাকবে (এই মতে বহু বুদ্ধিজীবীও ছিলেন)। আমি বলেছি যে অসম্ভব, বিএনপির মতো একটি বিরোধী দলকে নিয়ে আওয়ামী লীগের সরকার ৬ মাস টিকবে। আমার কথাই সত্য হলো, জাতীয় পার্টি বিরোধী দলে, তবে এতো কম আসন যে পাবে তা আমি ভাবতেও পারিনি। আওয়ামী লীগ অংক করতে ভুল করে না। যদি দুর্নীতি না থাকে তবে রাষ্ট্র গঠনে এমন ‘ভাইবোন’ খ্যাত রাজনৈতিক দলের খুব প্রয়োজন। এইচ এম এরশাদ হয়তো পরবর্তী রাষ্ট্রপতি হলেও অবাক হবার কিছু নেই। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]