• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » ‘রাজ চালাকি’র রাজনীতি থেকে সরে এসে জাতীয় সংলাপের আহ্বান জানিয়েছেন ড.কামাল


‘রাজ চালাকি’র রাজনীতি থেকে সরে এসে জাতীয় সংলাপের আহ্বান জানিয়েছেন ড.কামাল

আমাদের নতুন সময় : 11/01/2019

শিমুল মাহমুদ : ‘রাজ চালাকি’র রাজনীতি থেকে সরে এসে জাতীয় সংলাপের আহবান জানিয়েছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ও গণফোরাম সভাপতি ড.কামাল হোসেন। তিনি বলেন, আসুন বছরের প্রথম দিকে সংকট সৃষ্টি না করে সবার সঙ্গে জাতীয় সংলাপে বসি, জাতীয় সংলাপ সবচেয়ে ভাল পথ। সংলাপের মধ্যে দিয়ে সিদ্ধান্তগুলো নেওয়া হোক কিভাবে আমরা সংবিধানকে মেনে, নির্বাচন করে, নির্বাচিত সরকার গঠন করবো। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে গণফোরাম আয়োজিত বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ‘রাজ চালাকি’র নির্বাচন হয়েছে মন্তব্য করে ড. কামাল হোসেন বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বেঁচে থাকলে বলতেন, তোমরা রাত চালাকি থেকে বিরত থাকো। রাত চালাকির কারণেই আমরা রাজনীতি থেকে সরে যাচ্ছি।

তিনি বলেন, চুপি চুপি রাতে কি হলো, সকালে জানিয়ে দিল যে ভোট শেষ। রাষ্ট্রকে নিয়ে এভাবে খেলা করা তো চলে না। আমি মনে করি যারা এগুলো করছে হয় তারা না বুঝে করছে। তাদেরকে যারা উপদেশ দিচ্ছে, তারা সঠিক উপদেশ দিচ্ছে না। এই ধরণের তথাকথিত নির্বাচন এটা কোনো সুস্থ মানুষের করার কথা না। মানসিকভাবে সুস্থ থাকলে এটা করতে পারে না। এটা কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না। আইনানুগভাবে এটা হয় না। সংবিধান অনুযায়ী এটা হয় না। সংবিধান মানতে সবাই বাধ্য। সংবিধানের উর্দ্ধে কেউ না। কিন্তু এসব সংকট কেন সৃস্টি করা হচ্ছে?

ড. কামাল হোসেন বলেন, আমার খুব দুঃখ লাগে ৩০ ডিসেম্বর যে ঘটনা ঘটলো স্বাধীনতার ৪৮ বছর পরেও এটা দেখতে হচ্ছে, সেটা আমি বিশ্বাস করতে পারি না। এটা হওয়ার কথা না। ৪৮ বছর পরে এটা কেন এভাবে হবে? আমিতো সরলভাবে বলেছি, ভাই সকালে সকালে গিয়ে ভোট দেবেন। কিন্তু টেলিভিশনে বলেছে কামাল হোসেন তো বুঝতেই পারছেন না, ঘটনাতো রাতেই ঘটে গেছে।

গণফোরাম সভাপতি বলেন, আমি আজকে প্রশ্ন রাখতে চাই, এইসব অস্বাভাবিক কাজ কেন হচ্ছে? তৃতীয়বারের মতো একজন প্রধানমন্ত্রী হয়ে গেছেন। ৩০০ লোক সংসদ সদস্য হয়ে গেছে। আর বিরোধীদলে সাত জন, আমাদের দুজন। এটার অর্থটা কী? এটা একটা খেলা নাকি? ১৭ কোটি মানুষকে নিয়ে কী খেলা করা যায়? সারা দেশের মানুষের মুখে মুখে উচ্চারণ হচ্ছে যে, নাটক করেছে। আমি মনে করি মানসিকভাবে ভারসাম্য না হারালে এগুলো হয় না।

আলোচনা সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- জেএসডি সভাপতি আসম আব্দুর রব, গণফোরাম নেতা সুব্রত চৌধুরী, অধ্যাপক আবু সায়িদ,মোস্তফা মহসিন মন্টু, মেজর জেনারেল (অব.) আমসা আমিন, মফিজুল ইসলাম কামাল প্রমুখ।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]