সিলেটে অযতœ অবহেলায় ‘বঙ্গবন্ধু মিউজিয়াম’

আমাদের নতুন সময় : 11/01/2019

আহমেদ শামীম : জাতির পিতার জীবনের অধিকাংশ সময়ই কারাগারে কেটেছে। মানুষের মুক্তির ও স্বাধীনতার জন্য আন্দোলন করে এক অবিসংবাদিত নেতা হয়েছেন তিনি। দেশ-বিদেশে বিভিন্ন কারাগারে বহুবার কারাবরণ করেছেন। সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারেও কেটেছে তার বন্দিজীবন। স্বাধীনতার স্থপতি, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এই কারাগারেই বন্দি ছিলেন বেশ কিছুদিন। ব্রিটিশ আমল থেকে শুরু করে পাকিস্তান আমলে অনাচার বৈষম্যের বিরুদ্ধে বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করেন তিনি।

১৯৬৬ সালের ৬ দফা আন্দোলনের সময় বঙ্গবন্ধু সিলেট আসলে তৎকালীন সরকার বঙ্গবন্ধুকে আটক করে সিলেট কারাগারে বন্দি করে রাখে। কারাগারের যে কক্ষটিতে তাকে রাখা হয়েছিল সেই কক্ষটি ‘বঙ্গবন্ধু মিউজিয়াম’ নামে পরিচিত। তবে মিউজিয়াম শুধু নামেই। সেখানে কেবলই একটি সাইনবোর্ড আর বঙ্গবন্ধুর ছবি ছাড়া আর কিছু নেই। বর্তমানে এ কক্ষটি সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের পাঠাগার হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের জেল সুপার আবু সায়েম এ প্রতিবেদককে জানান, সিলেট কারাগার নতুন ঠিকানায় স্থানান্তরের পর বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিজড়িত এই কক্ষটি সংরক্ষণ করার পরিকল্পনা রয়েছে। সরেজমিনে দেখা যায়, বঙ্গবন্ধু যে কক্ষে বন্দি ছিলেন সেখানে বর্তমানে বঙ্গবন্ধু মিউজিয়াম নামে একটি সাইনবোর্ড লাগানো। এর বাইরে আর তেমন কিছু নেই। এখানে বসে বইপত্র পড়াশুনা করেন কারাবন্দিরা। জানা যায়, ১৯৬৬ সালের প্রথম দিকে বঙ্গবন্ধু ঐতিহাসিক ৬ দফা দাবি পেশ করার পর জনমত সৃষ্টির লক্ষ্যে তিনি দেশের বিভিন্ন স্থানে সফর শুরু করেন। ওই সময়ে তিনি সিলেট সফরে এলে তৎকালীন সরকার তাকে গ্রেপ্তার করে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি রাখে।

তৎকালীন গণমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান পাঁচ দিন বন্দি ছিলেন। সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ও স্বাস্থ্য মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম সরকারিভাবে ঐতিহাসিক এই স্থানটিকে সংরক্ষণ করে সেখানে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি গড়ে তোলার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান। জানা যায়, কারাগারে ভেতরে যে কক্ষটি এখন বন্দিদের পাঠাগার হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে সেটি টিনসেডের একটি ঘর। এখানে বসে বন্দিরা বইপত্র পড়াশুনা করেন।

এই কক্ষটিকে কারাগার করার কারণ এখানে বঙ্গবন্ধু পাকিস্তান আমলে বন্দি থাকাকালীন পরিবারের কাছে চিঠি লেখার পাশাপাশি বই পড়তেন। এমনকি পরিবার ও আত্মীয়স্বজনদের কাছ থেকে প্রাপ্ত চিঠিগুলো এখানে বসে পড়তেন। বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি ধরে রাখার জন্য কক্ষটিতে বঙ্গবন্ধুর একটি ছবি টানিয়ে রাখা হয়েছে। সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগার পূর্ণাঙ্গ রূপ পাওয়ার পর কক্ষটি আগে যেভাবে নির্মিত ছিল ঠিক সেভাবে আজও রয়েছে। তবে মাঝে মধ্যে রং ও কিছু মেরামত করা হয়েছে কক্ষটির। সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন)’র সভাপতি ফারুক মাহমুদ বলেন, যে কক্ষটিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে বন্দি করে রাখা হয়েছিল সেখানে যদি মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সম্বলিত বইপত্র রাখার পাশাপাশি কক্ষটি সংরক্ষণের উদ্যোগ নেয়া হয় তাহলে একটি দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। সম্পাদনা : বাহাউদ্দিন




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]