সড়কে ও পরিবহনে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা হবে অগ্রাধিকার : কাদের

আমাদের নতুন সময় : 11/01/2019

আনিস তপন : চলমান মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নের পাশাপাশি সড়কে ও পরিবহন সেক্টরে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনাটাই আমার কাছে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পাবে। ইতোমধ্যে এসব বিষয়ে প্রয়োজনীয় কাজগুলো করতে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এসব কথা বলেন, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

সেতুমন্ত্রী বলেন, আগামী জুনেই গাজীপুর থেকে এলেঙ্গা পর্যন্ত ফোর লেন সড়কের কাজ শেষ হবে। এলেঙ্গা থেকে রংপুর পর্যন্ত ফোর লেন সড়কের কাজ শেষ হওয়ার পর রংপুর থেকে একদিকে বুড়িমারি অন্যদিকে পঞ্চগড় পর্যন্ত ফোর লেন সড়কের কাজ শুরু হবে। তিনি বলেন, তবে আমার চ্যালেঞ্জ হবে চলমান কাজগুলো সমাপ্তের পাশাপাশি আরও দুটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রকল্প, যার একটি ঢাকা থেকে সিলেট আরেকটা চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত ফোর লেনের কাজ। এই দুটি কাজ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এরমধ্যে অন্তত ঢাকা-সিলেট সড়কের কাজ জুনের আগে শুরু হবে এবং চট্টগ্রাম-কক্সবাজার সড়ক প্রকল্পের কাজটি কিছুটা দেরিতে শুরু হবে।

তবে সড়কে এবং পরিবহন খাতে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনাটা সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পাবে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, কারণ সড়কে বিশৃঙ্খল পরিবেশ রেখে সড়ক উন্নয়নে যত কাজই করা হোক, তা কোনো কাজে আসবে না।

সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ আছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, তাই এই কাজগুলো শুরুতেই করার কথা ভাবছি। প্রথম রাতে বিড়াল না মারতে পারলে পরে আর মারা হবে না বলেও এসময় সাংবাদিকদের জানান তিনি।

এক প্রশ্নের জবাবে কাদের বলেন, আমার নিজস্ব কিছু কৌশলের প্রয়োগ ঘটিয়ে সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনার কাজ শুরু হবে। এর সঙ্গে সাধারণ কিছু কাজ রয়েছে যা সবাই জানেন। যেমন ছোট ছোট যানগুলো হাইওেয়েতে চলছে, লাইসেন্সবিহীন ছোট ছোট গাড়ি চলছে, যারা সড়কে বেশি বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির জন্য দায়ী। তিনি বলেন, সড়কের নতুন আতঙ্ক মোটরসাইকেল। রাজধানীতে অনেক শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা সম্ভব হলেও বাইরে তা বেপোরোয়াভাবে চলাচল করে। এক মোটরসাইকেলে তিনজন চড়ছে। তাদের আবার সবার লাইসেন্সও নাই। সম্মিলিতভাবে সবাইকে নিয়ে এই কাজগুলো শেষ করতে হবে বলেও এসময় জানান সেতুমন্ত্রী।

নিজ মন্ত্রণালয়ের কার্যাবলী সম্পর্কের পাশাপাশি এবার মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীদের পিএস (একান্ত সচিব) নিয়োগ বিষয়েও কথা বলেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, নতুন মন্ত্রিসভার সদস্যদের মতামত ছাড়া এবার পিএস নিয়োগ দেয়া হয়েছে। এই নিয়োগ সম্পূর্ণই প্রধানমন্ত্রীর ইচ্ছাতে হয়েছে। তিনি সবার খোঁজ-খবর নিয়ে পিএস হিসেবে সরকারি এসব কর্মকর্তাকে নিয়োগ দিয়েছেন। এর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী হয়তো বোঝাতে চেয়েছেন, তিনি সবার সঙ্গে আছেন। এর মাধ্যমে সবার পারফরম্যান্স বিবেচনা করা হতে পারে এবং এটা অবশ্যই ভালো একটি পদক্ষেপ মন্তব্য করে কাদের বলেন, আমার জন্যে ও তো একজন পিএস দেয়া হয়েছে। যদি তার পারফমেন্স ভালো না হয় তবে প্রধানমন্ত্রীকে বলে তাকে সরিয়ে দেয়ার অনুরোধ জানাবো। সম্পাদনা : আলমগীর

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]