• প্রচ্ছদ » গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ » বাঙালি জ্বলে উঠতে জানে কিন্তু জ্বলে ওঠার সাফল্যের ফল নিয়ে থিতু হতে জানে না বলে মনে করেন ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন


বাঙালি জ্বলে উঠতে জানে কিন্তু জ্বলে ওঠার সাফল্যের ফল নিয়ে থিতু হতে জানে না বলে মনে করেন ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন

আমাদের নতুন সময় : 10/02/2019

খায়রুল আলম : শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন বলেছেন, আমার কাছে মনে হয় বাঙালি জ্বলে উঠতে জানে কিন্তু সে জ্বলে ওঠা যখন সফল হয়, সে সাফল্যের ফল নিয়ে থিতু হতে জানে না। এটি যেমন ভাষা আন্দোলনের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য, তেমনি আমাদের মুক্তিযুদ্ধের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য।

এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন,  ভাষার যে মর্যাদা বা যে অবস্থানটুকু থাকার কথা ছিলো, ভাষা আন্দোলনের এতো বছর পরে এসেও সে মর্যাদা আমরা দেখছি না। বাংলা ভাষার আন্দোলনটি শুধু রাষ্ট্রীয়ভাবে ভাষার মর্যাদা অর্জন ছিলো না। এটি ছিলো অসাম্প্রদায়িক গণমানুষের একটি আন্দোলন। কিন্তু বাংলাদেশ তো অসাম্প্রদায়িকতা থেকে ক্রমেই বিচ্যুত হয়ে যাচ্ছে। আমাদের পাঠ্য-পুস্তকে ১৭টি রচনা বা কবিতা বদলানো হয়েছে। তার পরিবর্তে স্থান পেয়েছে সাম্প্রদায়িক কবিতা বা রচনা। সাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ ভাষা আন্দোলনের কথা বলে না। অন্য দিকে বাংলা ভাষার চর্চা খুবই ভ্রান্ত পথের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। শুদ্ধ বলায়, লেখায় শুদ্ধতা আমরা ক্রমেই হারিয়ে ফেলছি। আমার কাছে মনে হয়ে বাংলাদেশের বাঙালি বাংলা চর্চা করতে গিয়ে অশুদ্ধ চর্চা করছে। আবার ইংরেজিকে তাড়িয়ে ইংরেজিকে গ্রহণ করবার প্রাণান্তকর প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। কিন্তু বাঙালি কোনোটাতেই সফল হয়নি। বিভিন্ন গণমাধ্যম, রেডিও ও টেলিভিশনে টকশোতে যেভাবে ইংরেজি বাংলা মিশিয়ে কথা বলা হয়, সেটি অশুদ্ধ বাংলা ও অশুদ্ধ ইংরেজি চর্চা ছাড়া আর কিছু নয়। এটির কারণে আমরা ভাষা প্রতিবন্ধী জাতিতে পরিণত হচ্ছি কিনা ভাবতে হবে। ভাষা প্রতিবন্ধী জাতি হিসেবে ভাষার মাসে গদগদ হওয়ার পেছনে কোনো যুক্তি আছে বলে আমার মনে হয় না। বাংলা একাডেমির বই মেলায় বইয়ের সংখ্যা প্রসার হচ্ছে। কিন্তু যথার্থ বই যাকে বলে সেটি হাতে  গোনা কয়েকটি। বাংলা ভাষা যেমন অশুদ্ধভাবে চর্চিত হচ্ছে তেমনভাবে ইংরেজি ভাষাও আমরা শুদ্ধভাবে চর্চা করতে পারছি না। সরকারিভাবে করা অনেক অনুবাদ গ্রন্থ যেমন বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী ইংরেজিতে অনুদিত হয়েছে। কিন্তু বইটির ভেতরে অনেক পৃষ্ঠায় আমি ভুল ইংরেজি অনুবাদ দেখতে পাচ্ছি। এর মানে হচ্ছে, আমরা বাংলাও ভালো জানি না আবার ইংরেজিও ভালো জানি না। সুতরাং ভাষা সংক্রান্ত একটি ক্রান্তিকাল আমরা অতিক্রম করছি।

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]