কয়েকটি পুরুষতান্ত্রিক আচরণ

আমাদের নতুন সময় : 11/02/2019

ইসরাত জাহান উর্মী :

নারী বা পুরুষ উভয়ই এই আচরণগুলো করতে পারেন, যদি তিনি পুরুষতান্ত্রিক হন। ১. ‘মুড ভালো’ থাকলে কলিজাটা কেটে পিরিচে করে আপনাকে পরিবেশন করবে। ২. ‘মুড খারাপ’ থাকলে রাস্তায় পড়ে মরে থাকলেও ফিরে তাকাবে না। ৩. ‘মুড ভালো’ থাকলে উদার হস্তে তার পকেটে বা আঁচলে থাকা সমস্ত স্বাধীনতা আপনাকে উপুড় করে দেবে। ৪. ‘মুড খারাপ’ থাকলে আপনাকে পাবলিক শেমিং করা থেকে শুরু করে একজনের জীবন জেরবার করতে যা যা করা যায় সবই করবে। ৫. আপনার বাইরে যাওয়া, আপনার কারো সাথে আড্ডা বা মেলামেশা কোনো কিছু নিয়েই কিছু না বলে বা সরাসরি নিয়ন্ত্রণ না করে বুঝিয়ে দেবে সে কতো মহৎ। বুঝিয়ে দেবে আপনাকে স্বাধীনতা দেয়ার ক্ষমতা সে রাখে।
৬. আর রাগ হলে, বিপরীত লিঙ্গ তো দূর কী বাত এমনকি সমলিঙ্গের মানুষের সাথেও খুব বন্ধুত্ব বা শেয়ারিং মেনে নিতে পারবে না। ৭. কখনো কখনো কিছুই না বলে নীরবে এমন আবহ দেবে যে আপনার মতো স্বেচ্ছাচারীকে কতো কষ্টে সে সহ্য করছে। ৮. হঠাৎ এমন কাউকে নিয়ে আপনার প্রেমের সম্পর্ক আছে বলে মিথ্যা সন্দেহ করবে যে আপনি নিজেই টাসকি খাবেন। ৯. আপনি কেঁদে না ফেলা পর্যন্ত কট‚ কথা চালাবে। পুরুষতান্ত্রিক মানুষরা অপরজনের কেঁদে ফেলা দেখতে খুব পছন্দ করে। ১০. আপনাকে জোর-জবরদস্তি, আইসিটি মামলা প্রয়োজনে খুনখারাপি করে হলেও ‘ভালোবাসাবে’।
১১. ঝগড়ার সময় বেছে বেছে আপনার দুর্বলতম বা সবচেয়ে দুঃখ পান এ রকম কিছু মনে করে খুঁজে বের করে আপনাকে রক্তাক্ত করবে। ১২. যেকোনো অন্যায় আচরণ করে পরে আন্তরিকভাবেই স্যরি বলতে পারে। (আবার নাও বলতে পারে) তারা মনেই করে ‘রাগের মাথায়’ তো অতোটুকু বলাই যায়। স্যরি বলে নিলেই সব ঠিক হয়ে যায় এবং স্যরি বলা মাত্র আপনাকে সকল কিছু মাফ করার উদারতা দেখাতে হবে। নইলে চলবে না।
ফুটনোট : সাধারণত স্ট্রেসের কারণেই এসব আচরণ করে বলে তারা জানায়। কিন্তু প্রশ্ন হলো, এই একই রকম স্ট্রেস, একই রকম সংকটের ভেতর দিয়ে যেসব মানুষ পুরুষতান্ত্রিক নন তারাও যান, তারা কেন এ ধরনের আচরণ করেন না? তারাও কেন আগপাছ ভাবেন না? তাদেরও কেন ‘রাগের মাথা’ ব্যাপারটা হয় না? কেন করেন না, কেন হয় না জানেন? কারণ পার্টনারকে তারা পরিপূর্ণ মানুষ মনে করেন, অধস্তন নয়। ‘পুরুষতান্ত্রিক আচরণ’ যে একটা ঘৃর্ণার ব্যাপার এইটা নারী-পুরুষ সকলেরই বোঝা উচিত। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]