কোরআনে বর্ণিত আল্লাহর অস্তিত্বের নিদর্শনাবলী

আমাদের নতুন সময় : 08/03/2019

নারগিস সুলতানা নাহিদা

পবিত্র কোরআনে আল্লাহ তায়ালা তাঁর অস্তিত্বের প্রচুর নিদর্শন পেশ করেছেন। মানবজাতির কাছে যেন আল্লাহর অস্তিত্ব একেবারে সন্দেহাতীতভাবে সাব্যস্ত ও প্রমাণিত হয়, সে জন্য তাত্তি¡ক ও বুদ্ধিবৃত্তিক নিদর্শনের পাশাপাশি সহজ ও সর্বজনবোধ্য বেশকিছু নিদর্শনের কথাও উল্লেখ করেছেন। এক্ষেত্রে একাধিক বর্ণনাভঙ্গি ব্যবহার করা হয়েছে। যেমন কোথাও বলা হয়েছে, ‘ইন্না ফি খালকিস সামাওয়াতি…’ তথা আসমান ও জমিন সৃষ্টির মধ্যে… বুদ্ধিমানদের জন্য নিদর্শন রয়েছে। আর কোথাও বলা হয়েছে, ‘ওয়ামিন আয়াতিহি’ অর্থাৎ তাঁর নিদর্শনের মধ্য থেকে…। অনুসন্ধানে দেখা গেছে, দ্বিতীয় প্রকার আয়াতের সংখ্যা পুরো কোরআনে ১১টি। মজার ব্যাপার হলো, এগুলোর বেশিরভাগই সূরা রূমে বিবৃত হয়েছে। বস্তুত এর দ্বারা ইঙ্গিত করা হচ্ছে, রূম তথা জড় ও বস্তুবাদী দুনিয়ার মোহে পড়ে যারা সৃষ্টিকর্তা আল্লাহকে চেনে না কিংবা ভুলে যায়, তারা যেন এ দুনিয়া থেকেই আল্লাহর নিদর্শন দেখে নেয় এবং শিক্ষাগ্রহণ করে। এখানে তেমনি কয়েকটি আয়াতের অনুবাদ পেশ করা হলোÑ
১. তাঁর নিদর্শনের মধ্যে এক নিদর্শন এই যে, তিনি মৃত্তিকা থেকে তোমাদের সৃষ্টি করেছেন। এখন তোমরা মানুষ, পৃথিবীতে ছড়িয়ে আছ। (সূরা রূম : ২০)
২. আরেক নিদর্শন এই যে, তিনি তোমাদের জন্য তোমাদের মধ্য থেকে তোমাদের সঙ্গিনীদের সৃষ্টি করেছেন, যাতে তোমরা তাদের কাছে শান্তিতে থাক এবং তিনি তোমাদের মধ্যে পারস্পরিক সম্প্রীতি ও দয়া সৃষ্টি করেছেন। নিশ্চয়ই এতে চিন্তাশীল লোকদের জন্য নিদর্শন রয়েছে। (সূরা রূম : ২১)
৩. তাঁর আরও এক নিদর্শন হচ্ছে, নভোমÐল ও ভূমÐলের সৃজন এবং তোমাদের ভাষা ও বর্ণের বৈচিত্র্য। নিশ্চয়ই এতে জ্ঞানীদের জন্য নিদর্শন রয়েছে। (সূরা রূম: ২২)
৪. তাঁর আরও নিদর্শন, রাতে ও দিনে তোমাদের নিদ্রা এবং তাঁর কৃপা অন্বেষণ। নিশ্চয়ই এতে মনোযোগী সম্প্রদায়ের জন্য নিদর্শন রয়েছে। (সূরা রূম: ২৩)
৫. তাঁর আরও নিদর্শন, তিনি তোমাদের দেখান বিদ্যুৎ, ভয় ও ভরসার জন্য এবং আকাশ থেকে পানিবর্ষণ করেন, অতঃপর তা দ্বারা ভূমির মৃত্যুর পর তাকে পুনরুজ্জীবিত করেন। নিশ্চয়ই এতে বুদ্ধিমান লোকদের জন্য নিদর্শন রয়েছে। (সূরা রূম : ২৪)
৬. আল্লার অন্যতম নিদর্শন এই যে, তাঁরই আদেশে আকাশ ও পৃথিবী প্রতিষ্ঠিত আছে। অতঃপর যখন তিনি মৃত্তিকা থেকে ওঠার জন্য তোমাদের ডাক দেবেন, তখন তোমরা উঠে আসবে। (সূরা রূম : ২৫)
৭. তাঁর নিদর্শনগুলোর মধ্যে একটি এই যে, তিনি সুসংবাদবাহী বায়ু প্রেরণ করেন, যাতে তিনি তাঁর অনুগ্রহ তোমাদের আস্বাদন করান এবং যাতে তাঁর নির্দেশে জাহাজগুলো বিচরণ করে এবং যাতে তোমরা তাঁর অনুগ্রহ তালাশ কর এবং তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞ হও। (সূরা রূম : ৪৬)
৮. তাঁর নিদর্শনগুলোর মধ্যে রয়েছে দিবস, রজনি, সূর্য ও চন্দ্র। তোমরা সূর্যকে সিজদা করো না, চন্দ্রকেও না; আল্লাহকে সিজদা কর, যিনি এগুলো সৃষ্টি করেছেন, যদি তোমরা নিষ্ঠার সঙ্গে শুধু তাঁরই ইবাদত কর। (সূরা হা-মিম সিজদাহ : ৩৭)
৯. আল্লাহর এক নিদর্শন এই যে, তুমি ভূমিকে দেখবে অনুর্বর পড়ে আছে। অতঃপর আমি যখন তার ওপর বৃষ্টি বর্ষণ করি, তখন সে শস্যশ্যামল ও স্ফীত হয়। নিশ্চয়ই যিনি একে জীবিত করেন, তিনি জীবিত করবেন মৃতদেরও। নিশ্চয়ই তিনি সবকিছু করতে সক্ষম। (সূরা হা-মিম সিজদাহ : ৩৯)
১০. তাঁর এক নিদর্শন নভোমÐল ও ভূমÐলের সৃষ্টি এবং উভয়ের মধ্যে তিনি জীবজন্তু ছড়িয়ে দিয়েছেন। তিনি যখন ইচ্ছা এগুলোকে একত্রিত করতে সক্ষম। (সূরা শুরা : ২৯)




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]