• প্রচ্ছদ » » নারী যেন একদিনের ‘রানী’ হয়ে না থাকেন


নারী যেন একদিনের ‘রানী’ হয়ে না থাকেন

আমাদের নতুন সময় : 15/03/2019

ডা. মো. তাজুল ইসলাম

প্রতি বছর ৮ মার্চ বিশ্ব নারী দিবস হিসেবে পালন করা হয়। এদিন আমরা নারীকেÑ‘রানী’ বানিয়ে কতো গুণগান, জয়গান করে থাকি। সারাবছর, সারাজীবন নারীকে (কন্যা, জায়া, জননী) আমরা কেমন রাখি? যৌবনের রোমান্টিকতায় ছেলেরা মেয়েদের-ওগো জানু, ও প্রিয়া, সোনামণি, হৃদয়ের রানীÑকতো আবেগমথিত সম্ভাষণ করে থাকে। তাদের এই ভালোবাসার উষ্ণতায় নারীর কোমল মন গলে পানি হয়ে যায়। আরও প্রেমঘন উষ্ণ আলিঙ্গনে সে জলীয় হৃদয়, মন বাষ্পীভ‚ত হয়ে পড়ে। তবে কতোদিন থাকে এই ‘রানী’ মর্যাদা? অন্তত এদিনে বছরে একদিন হলেও যদি পাওয়া যায় তেমন বন্দনা- মন্দ কী? ১. গাছের মগডাল থেকে মানুষ যখন নিচে নেমে গুহাবাসী হয়, তখন পুরুষরা বাইরে যেতো পশু শিকার করতে। নারী ঘর (গুহা) ও পূর্বদিনের শিকার পাহারা দিতো। গুহার চারপাশে বিভিন্ন মৌসুমে বিভিন্ন বীজ থেকে বিভিন্ন শস্য ও ফসল ফলার দৃশ্য নারী দেখতে পেতো। কৌত‚হলবশত নারী গম, ভুট্টা, ধান প্রভৃতির বীজ গুহার পাশে পুঁতে রেখে আশ্চর্য ফল পান। শুরু হয় মানবের ‘কৃষি জীবন’। এ থেকেই শুরু মানব সভ্যতা।
২. অন্য সব প্রাণীর বাচ্চা, জন্ম গ্রহণের পর পরই দ্রæত হাঁটতে, দৌড়াতে ও নিজের স্বাধীন জীবনযাপন করতে শিখে যায়। কিন্তু ব্যতিক্রম মানব শিশু। মানব শিশুকে দীর্ঘদিন লালন-পালন করতে হয়, নিরাপত্তা, খাদ্য, বাসস্থানসহ সকল প্রকার পরিচর্যা দিতে হয়,পূর্ণ স্বাধীনভাবে নিজস্ব জীবন চালানোর আগ পর্যন্ত। এই দীর্ঘ শৈশব, কৈশোর সময়কালের প্রতিপালনের, বেশিরভাগ দায়িত্ব বর্তায় মায়ের ওপর ( নারী)। এককথায় মানব সভ্যতার শুরু করেছে নারী এবং মানব প্রজাতির বংশধারার পরিণত ও বিকশিত ধারা বজায় রাখার দায়ও নিয়েছে নারী। ৩. নারী সব জায়গায় পুরুষের সমান সম্মান, গুরুত্ব পাচ্ছে না সেটি অনেকাংশে সঠিক। ৪. তবে ‘মা’ হিসেবে (নারী) তারা সবসময় সব জাতিতে পুরুষের (বাবা) চেয়ে বেশি সম্মান, গুরুত্ব পাচ্ছে একথা অস্বীকার করা যাবে না। (আমার স্ত্রী নির্দ্বিধায় স্বীকার করে আমি আমার সন্তানদের জান দিয়ে ভালোবাসি। কিন্তু সন্তানদের মমতা, ভালোবাসা, পক্ষপাতিত্ব সবসময় মায়ের দিকে বেশি থাকে (এ রকম তুলনা ঠিক নয়, তবু প্রাসঙ্গিক কারণে তুলনাটি এনেছি)। তার মানে অন্তত জীবনের একটি পরিচয়ে নারী পুরুষের চেয়ে অগ্রগামী। এটি হলো ন্যূনতম হিসাব। ৫. এছাড়া নজরুল বলেছেন : ‘বিশ্বের যাহা কিছু মহান সৃষ্টি/চির কল্যাণকর/অর্ধেক তার করিয়াছে নারী/অর্ধেক তার নর’। ৬. সার্বিক বিচারে নারী আরো ঈর্ষণীয় অবস্থানে আছে। যেমন কবি শরদিন্দু কর্মকার বলেন : ‘বাপের ঘরে ল²ী আমি…/স্বামীর ঘরে অন্নপূর্ণা/ছলের ঘরে জননী আমি… /আমি ছাড়া সংসার অসম্পূর্ণা।’ লেখক : মনোবিদ




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]