• প্রচ্ছদ » » নুরুল হক ভিপি হওয়ায় অভিজাতদের গায়ে জ্বালা?


নুরুল হক ভিপি হওয়ায় অভিজাতদের গায়ে জ্বালা?

আমাদের নতুন সময় : 15/03/2019

সাইফুদ্দিন আহমেদ নান্নু

নূরের সরাসরি পক্ষে বলছেন, লিখছেন এমন মানুষ হাতে গোনা যাচ্ছে। কিন্তু সরাসরি বিপক্ষে লিখছেন,পারলে তার চামড়া ছিলে ফেলেন এমন লেখক-আলোচকই বিস্তর। বিস্ময়করভাবে আগ্রাসী ভ‚মিকায় নেমেছেন মিডিয়ায় কর্মরত কিছু মানুষ। ফেসবুকে তাদের আক্রমণ সবচেয়ে কট্টর। গত ক’দিন ধরে পর্যবেক্ষণ করে সবচেয়ে মজার একটা বিষয় চোখে পড়েছে। তাহলো নূরের সমালোচকদের অধিকাংশই উচ্চবর্ণের মানুষ। তারা নিজেদের সমাজের এলিট শ্রেণির মানুষ বলে ভাবেন। অনেকে এলিটও। তাদের লেখার, বলার ভাষা, অভিব্যক্তিতে নূরের প্রতি একটা তাচ্ছিল্য জ্বলজ্বল করতে থাকে। ভাবটা এমন যে, ‘শালার নুইরার মতো পোলা ডাকসু ভিপি হইয়া গেলো!’
আসলেই তো নূরের জন্ম নিখাদ কৃষকের ঘরে, বউটাও প্রাইমারির মাস্টার। তার পরিবারের কোনো রাজনৈতিক ঐতিহ্য নেই। ইংরেজি সাহিত্যের ছাত্র হলে কী হবে নুরের কথা বলার স্টাইলে এখনও পুরা মফস্বল আর গেরাইমা গন্ধ। পোশাকে আধুনিকতা কিংবা রাবীন্দ্রিক টোন নেই। চেহারায় চলনে বলনে বড়জোর চরাঞ্চলের কলেজে পড়া পোলাপানের মতো লাগে। বড় কোনো মামা নেই, খালু নেই। রাজহাঁসের মতো হেলেদুলে চলা গাড়ি তো দূরের কথা একটা মোটরসাইকেলও বোধকরি নেই। সত্যিই তো এ রকম একটা ছেলেকে আমাদের অভিজাত সমাজ, নিজেদের অভিজাত শ্রেণিভুক্ত মনে করা মানুষরা কী করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিপি হিসেবে মেনে নেবে! গায়ে তো এমনিতেই জ্বালা বাইন্ধ্যা যায়।
হ্যাঁ রাজনৈতিক অবস্থানগত কারণেও নূরের ভিপি হওয়ার বিরোধিতা অনেকেই করছেন। সেটা সঙ্গত কারণও হয়তো আছে। কিন্তু সেই বিরোধিতায় কখনও কখনও রাজনৈতিক বিশ্লেষণ, রাজনৈতিক আদর্শ ছাপিয়ে তুচ্ছতাচ্ছিল্যই শেষ পর্যন্ত বড় হয়ে ওঠে। বিঃদ্রঃ আমাদের চলতি সময়ের ৯৯ ভাগ অভিজাতদের তিনপুরুষ আগের মানুষরা কৃষক ছিলেন এবং তাদের অনেকেই বাথরুম কী জানতেন না,পাটক্ষেতে হাগতেন।
নির্বাচিত মন্তব্য : Ñসালাম খান দুলাল : আপনার বিঃদ্রঃ টাই বিদ্রƒপকারীদের পূর্বপুরুষদের হকিকত তুলে ধরার জন্য ১০০ ভাগ পারফেক্ট। তারা নিজেদের দুর্বলতা ঢাকতেই এমনটা করছে। Ñআজিজুল হক বাহার : এখন যারা হোমরা-চোমরা, রাজনীতির কর্ণধার তাদের ক’জনই বা উচ্চ বর্ণের? নাম বলতে চাই না। বরং তথাকথিত গাঁও গেরামের ক্ষেতরাই রাজনীতিতে এসেছে আগের দিনে। অধিকার হারা, রোদপোড়া খেটে খাওয়া মানুষরাই অধিকার সচেতন। এলিট সোসাইটি সুবিধাবাদী ভুয়া। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]