• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » শিক্ষক নিয়োগে লিখিত পরীক্ষার পাশাপাশি নৈতিক চরিত্রের বিষয়টা অবশ্যই বিবেচনায় নিতে হবে, বললেন ড. আরেফির সিদ্দিক


শিক্ষক নিয়োগে লিখিত পরীক্ষার পাশাপাশি নৈতিক চরিত্রের বিষয়টা অবশ্যই বিবেচনায় নিতে হবে, বললেন ড. আরেফির সিদ্দিক

আমাদের নতুন সময় : 09/04/2019

জুয়েল খান : যে সকল শিক্ষকদের হাতে তাদের শিক্ষার্থীরা যৌন হয়রানির শিকার হচ্ছে সেই শিক্ষকের শিক্ষকতার কোনো যোগ্যতাই ছিলো না। শিক্ষকতা শুধু মেধা ও পরীক্ষার ফলাফল দিয়ে মূল্যায়ন করলেই হরে না, তার নৈতিক চরিত্রের বিষয়টাকেও গুরুত্বের সাথে দেখা উচিত বলে মনে করেন ঢাকা বিশ্বাবিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ড. আরেফিন সিদ্দিক।
তিনি বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে শিক্ষক দ্বারা বিভন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষর্থীরা যৌন হয়রানির শিকার হচ্ছে। এখন প্রশ্ন হচ্ছে, যে শিক্ষক আমাদের ভবিষ্যৎ সমাজ ও জাতি গঠনের কারিগর তারা কীভাবে তাদের শিক্ষার্থীদের সাথে এমন আচরণ করছে। তাই সময় এসেছে এই বিষয়টা নিয়ে ভাবার।
শিক্ষকরা আমাদের সমাজের বিবেক, তাদের দেখানো পথ নতুন প্রজন্ম অনুসরণ করবে কিন্তু সেই শিক্ষকের চরিত্র যদি এমন হয় তাহলে আমাদের সমাজ কীভাবে এগোবে। শিক্ষকদের এমন আচরন পুরো শিক্ষক সমাজের এবং আমাদের জাতির জন্য খুবই লজ্জাজনক।
তিনি আরো বলেন, শিক্ষকদের হাতে যে সকল যৌন হয়রানির ঘটনা ঘটেছে প্রশাসনের উচিত প্রত্যেকটা ঘটনার বিস্তারিত তদন্তের মাধ্যমে অভিযোগ প্রমাণিত হলে সেই শিক্ষকের চাকরি থেকে বহিষ্কার করে কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা করা, যাতে এই শাস্তি দেখে কোনো শিক্ষক এমন কাজ করার সাহস না পায়। তবে শিক্ষক নিয়োগের সময় আরো বেশি সতর্ক হতে হবে। একই সাথে শিক্ষকদের নৈতিক চরিত্রের বিষয়ে নিয়মিত কাউন্সিলিং করাতে হবে।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]