তনু-মিতুর মতো নুসরাত যেন হারিয়ে না যায়

আমাদের নতুন সময় : 13/04/2019

প্রভাষ আমিন : মন্তব্যটি আমার নয়, হাইকোর্টের। নুসরাতের মৃত্যুর পর ১১ এপ্রিল বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সৈয়দ সাইয়্যেদুল হক সুমন বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত এ সংক্রান্ত খবর নিয়ে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন। তার আর্জি ছিলো বিচার বিভাগীয় তদন্তের। বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ অবশ্য তার আবেদনে সরাসরি সাড়া দেননি; তবে বলেছেন, ‘তদন্তে গাফিলতি দেখলে আদালতে আসবেন, আমরা ইন্টারফেয়ার করবো’। আদালত বলেছেন, ‘আমরা যতোটুকু জানি যে এ ঘটনাটা পিবিআইতে ট্রান্সফার করা হয়েছে তদন্তের জন্য। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিজে এটা তদারকি করছেন। আমরা কোনোভাবেই চাই না সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনির মতো, চট্টগ্রামের মিতু, কুমিল্লার তনুর মতো যেন এ মামলাটা হারিয়ে না যায়। যেহেতু বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছেন, আমরা এ বিষয়ে কোনো আদেশ দিতে চাই না। তবে ঘটনার বিষয়ে তদন্ত কাজে যেন কোনো গাফিলতি না থাকে’।
উচ্চ আদালতকে ধন্যবাদ। তারা সমস্যার মূলটা ধরতে পেরেছেন। বাংলাদেশের মূল সমস্যা হলো বিচারহীনতা। আমরা যে বলি, দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। কেন বলি? বলি, কারণ কোনো অপরাধের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হলে অন্য অপরাধীরা ভয় পাবে। মনে যাই থাক, অপরাধ করার আগে তারা দশবার ভাববে। কিন্তু যদি দেখে, এই দেশে খুন করলে, ধর্ষণ করলে কোনো শাস্তি হয় না; একটু প্রভাব থাকলেই পার পাওয়া যায়; তাহলে কোনোদিনই অপরাধ বন্ধ হবে না। নতুন কোনো উদাহরণ দিতে চাই না, উদাহরণ আদালতই দিয়েছেন। দেশজুড়ে তোলপাড় তোলা অনেক ঘটনারই কোনো বিচার হয়নি। তাই শঙ্কা নুসরাত হত্যার বিচার নিয়েও। এই যে নুসরাতের জন্য এতো আহাজারি, সব ব্যর্থ হবে, যদি নুসরাতকে যারা আগুন দিয়ে পুড়িয়ে মেরেছে, যারা এর পেছনে ছিলো; তাদের ন্যায্য বিচার না হয়। একটা দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে হবে। আমরা যেন দুদিন পর নুসরাতকে ভুলে না যাই। আমাদের সম্মিলিত চাপটা অব্যাহত রাখতে হবে। নুসরাত শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত প্রতিবাদ করেছে, বিচার চেয়েছে। আমরা যেন এই চাওয়াটার মূল্য দিই।
তবুও আমি হাইকোর্টের প্রতি আগাম আর্জি জানিয়ে রাখছি, তদন্তে বা বিচার প্রক্রিয়ায় কোনো গাফিলতি দেখলে যেন তারা হস্তক্ষেপ করেন। আমরা তো বেশিকিছু চাইছি না। শুধু চাইছি না, শুধু চাইছি, প্রতিবাদ করার অপরাধে একটি মেয়েকে পুড়িয়ে হত্যার সুষ্ঠু বিচার।
লেখক : হেড অব নিউজ, এটিএন নিউজ




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]