গ্যাসের প্রস্তাবিত মূল্য বাড়লে বিদ্যুৎ উৎপাদন ব্যয় বাড়বে ৯৪ শতাংশ, টেক্সটাইল খাতে বাড়বে ১৮ শতাংশ

আমাদের নতুন সময় : 14/04/2019

স্বপ্না চক্রবর্তী : গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির প্রভাবে বিদ্যুৎ উৎপাদনসহ অন্যান্য শিল্প খাতের ব্যয় কয়েকগুণ বৃদ্ধি পাওয়ার আশংকা করছেন খাত সংশ্লিষ্টরা। তাদের দাবি এই মূল্য বাড়লে বিদ্যুৎ এবং টেক্সটাইল খাত ছাড়াও সিমেন্ট খাতে ব্যয় বাড়বে ১.৯৩ শতাংশ এবং স্টিল বা ইস্পাত খাতের ব্যয় বেড়ে দাঁড়াবে ৭.৩৭ শতাংশ। তবে ব্যয় বাড়লেও নিরবচ্ছিন বিদ্যুৎ না পাওয়ার শংকায় রয়েছেন ব্যবসায়ীরা। এ ব্যাপারে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (ডিসিসিআই) সভাপতি ওসামা তাসীর বলেন, শিল্প উৎপাদন অব্যাহত রাখতে অধিকতর চাপ সম্পন্ন গ্যাসের নিরবিচ্ছিন্ন সরবরাহ নিশ্চিত করা খুবই জরুরি। প্রস্তাবিত মূল্য বৃদ্ধির হার কার্যকর হলে, শিল্পখাতের উৎপাদন খরচ বাড়বে, বিশেষ করে সার, বস্ত্র, ডেনিম, তৈরি পোশাক, সিমেন্ট, স্টিল প্রভৃতি খাতসমূহের ওপর প্রভাব পড়তে পারে। ফলে ভিয়েতনাম, ইন্দোনেশিয়া, মিয়ানমার এবং কম্বোডিয়া প্রভৃতি প্রতিযোগী দেশের সাথে ব্যবসায় টিকে থাকতে হলে, আমাদের অবশ্যই স্বল্পমূল্যে নিরবিচ্ছিন্ন গ্যাস সরবরাহ নিশ্চিত করতে হবে। একই কথা বলেন বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস এসোসিয়েশনের সভাপতি মোহাম্মদ আলী খোকন। তিনি বলেন, বিটিএমএ এর অন্তর্ভূক্ত ৫৮৫টি টেক্সটাইল মিল ক্যাপটিভ পাওয়ার স্টেশনের মাধ্যমে ১৩০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করছে যাতে ব্যয় হচ্ছে ৩০ থেকে ৩৫ কোটি টাকা। তাই প্রতিযোগিতায় টিকে থাকার জন্য গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি না করার আহ্বান জানান তিনি।
তবে গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি করা হলে বিদ্যুৎ উৎপাদনের খরচ বাড়বেই তাই নিজস্ব কয়লা ব্যবহারের মাধ্যমে বিদ্যুৎ উৎপাদনের পরামর্শ দিয়েছেন বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিশেষজ্ঞ ড. ইজাজ হোসেন। ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি মো. শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিনও বলেন, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসমূহে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হলে অবৈধ গ্যাস ও বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্নকরণসহ এলপিজি ব্যবহারকে উৎসাহিত করতে হবে। শুধু তাই নয় পিক ও অফপিক সময়ে আলাদ ট্যারিফ প্রবর্তন করলেও আশানুরূপ ফলাফল পাওয়া যেতে পারে বলে মনে করেন তিনি। শুধু তাই নয় এলএনজি’র মূল্য নির্ধারণের ওপর গবেষণা পরিচালনা, আমদানিকৃত এলএনজি’র ওপর নির্ভরতা কমানো, সিস্টেম লস কমানো এবং ৩-৫ বছর মেয়াদি গ্যাস মূল্য নীতিমালা প্রণয়নের বিষয়েও গুরুত্ব দেন তিনি। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]