হালখাতা উৎসবের জন্যে প্রস্তুত পুরান ঢাকা

আমাদের নতুন সময় : 14/04/2019

স্বপ্না চক্রবর্তী : আজ বাংলা নতুন বর্ষকে বরণ করে নিতে দেশজুড়ে চলছে নানা আয়োজন। পিছিয়ে নেই পুরান ঢাকার ব্যবসায়ীরাও। বিগত বছরের দেনা-পাওনার হিসাব চুকিয়ে আজ নতুন বছরের শুরুতে ব্যবসার শুভ সূচনার লক্ষ্যে হালখাতা উৎসবের জন্য চলছে পুরোদমে প্রস্তুতি। তবে ব্যবসায়ীরা জানান, ভার্চুয়াল এই সময়ে আগের মতো আর হালখাতায় পাইকারী ব্যবসায়ী ও গ্রাহকের সমাগম না হওয়ায় উৎসবটা ঝিমিয়ে গেছে অনেকটাই। তবুও ঐতিহ্য ধরে রাখতে পিছপা হচ্ছেন না অনেকেই।
বাদামতলী ও বাবুবাজার চাল আড়ৎদার সমিতির সাধারণ সম্পাদক হাজী মো. নিজাম উদ্দিন বলেন, ব্যবসা করছি প্রায় ৪২ বছর ধরে। ৪২ বছর আগের হালখাতা উৎসব ছিলো বিয়ের উৎসবের মতো। আমাদের দোকানঘরগুলোকে তখন বাসরঘরের মতো করে সাজাতাম আমরা। সময় বদলে গেছে। এখন হালখাতা উৎসব আর নববর্ষ একাকার হয়ে পুরান ঢাকা থেকে ছড়িয়ে পড়েছে সারা শহরে। দিনটি এখনও রঙিন। তবে নতুন জামা-কাপড়, নাচ-গানে। হালখাতার সেই রঙ আর নেই। তিনি বলেন, তবুও আমরা ব্যবসায়ীরা প্রতিবছরই অপেক্ষা করি এই দিনটির জন্য। সারা বছরের বাকির খাতা বন্ধ করে নতুন খাতা তো আমদের খুলতেই হয়। আগের মতো এত রমরম করা উৎসব না হলেও এখনও আমরা গ্রাহকদের মিষ্টি আর বিরিয়ানি ঠিকই খাওয়াই।
চৈত্রের শেষ আর বৈশাখের শুরুর দিনটি আবার দুই ভাগে বিভক্ত। হাজী মো. নিজাম উদ্দিন জানান, বাংলা ক্যালেন্ডারের সাথে মিল রেখে আমরা ১৪ এপ্রিল হালখাতা বা পহেলা বৈশাখ উদযাপন করলেও হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকেরা এটি পালন করে ১৫ তারিখ। তাদের পঞ্জিকা মতে ১৫ তারিখই পহেলা বৈশাখ। তিনি বলেন, সেই দিক দিয়ে পুরান ঢাকায় হালখাতা উৎসব চলবে দুই দিনব্যাপী।
পুরান ঢাকা ঘুরে দেখা যায়, বিভিন্ন অলি-গলির ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ইতিমধ্যেই পুরো ধুয়ে মুছে সাফ করা হচ্ছে। নতুন রঙ লেগেছে দেয়ালেও। হালখাতা উপলক্ষ্যে পুরো ঢাকার শাঁখারিবাজার, তাঁতিবাজার ও বাবুবাজারের প্রায় প্রতিটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানেই প্রায় একই চিত্র। ব্যবসার অন্যতম প্রাণকেন্দ্র শ্যামবাজারের পাইকারী আড়তগুলো সেজেছে নুতন সাজে। রঙ বেরঙের কাগজের ফুল আর চকমকে প্ল্যাকার্ড স্বাগত জানাচ্ছে হালখাতাকে। আগের মতো জাঁকজমক না থাকলেও নতুন বছরে হিসাবের নতুন খাতা খোলার প্রস্তুতি শেষের পথে। মিষ্টি দিয়ে ক্রেতা ও অতিথি আপ্যায়নে নেয়া হয়েছে ব্যবস্থা।
পুরনো লেনদেন মিটিয়ে নতুন বছরে ব্যবসা শুরু হবে নতুনভাবে। লাল মলাটের খাতায় হালনাগাদ হবে সব হিসাব-নিকাশ। তাই শেষ মূহূর্তে লাল খাতা, কলম, পঞ্জিকারগুলোতে দেখা যায় উপচে পড়া ভীড়। অধিকাংশ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে পহেলা বৈশাখে হালখাতা উৎসব হলেও পঞ্জিকা অনুসারে অনেকে হালখাতা করবে কাল সোমবারে। কেউ কেউ আবার ঝামেলা এড়াতে আগে ভাগেই সেরে ফেলেছেন হালখাতার অনুষ্ঠান। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]