রাবি শিক্ষক শফিউল ইসলাম হত্যা মামলায় ৩ জনের ফাঁসির আদেশ

আমাদের নতুন সময় : 16/04/2019

মঈন উদ্দীন : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. একেএম শফিউল ইসলাম লিলন হত্যা মামলায় তিনজনকে মৃত্যুদ- দিয়েছেন আদালত। বাকি আটজনকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়েছে। গতকাল সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টায় রাজশাহীর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক অনুপ কুমার সাহা এ রায় ঘোষণা করেন। দ-প্রাপ্ত আসামিরা হলেন-বিএনপি কর্মী আবদুস সালাম পিন্টু, যুবদল নেতা আরিফুল ইসলাম মানিক ও সবুজ শেখ। এদের মধ্যে সবুজ পলাতক রয়েছেন। খালাসপ্রাপ্তরা হলেন- জেলা বিএনপির যুগ্মসম্পাদক আনোয়ার হোসেন উজ্জ্বল, পিন্টুর স্ত্রী নাসরিন আক্তার রেশমা, সিরাজুল ইসলাম কালু, আল-মামুন, সাগর, জিন্নাত, আরিফ ও ইব্রাহিম খলিল ওরফে বাবু। দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের স্পেশাল পিপি এন্তাজুল হক বাবু বিষয়টি গণমাধ্যমকর্মীদের নিশ্চিত করেছেন। তবে, নিহত শিক্ষকের সন্তান মনে করেন, তদন্ত এবং বিচারপ্রক্রিয়া সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়নি।
ডয়েস ভেলেকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ছেলে সৌমিন শাহরিদ বলেন, রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ে প্রশাসনের গাফিলাতি ছিল। সেসময় এসময় এসব বিষয়ে মাথা না ঘামিয়ে তাকে পড়ালেখায় মনোযোগী হতে পরামর্শ দিয়েছিল প্রশাসন। তারা ঘটনাটিকে ঠিকমতো আমলেই নেইনি এবং যারা এই ঘটনায় আসলে দায়ী, তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে তারা ব্যর্থ হয়েছে। র‌্যাব এই মামলায় যুক্ত হয়ে মামলাটিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করেছে বলে তিনি মন্তব্য করেন।
জানাযায়, ২০১৪ সালের ১৫ নভেম্বর বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন চৌদ্দপাই এলাকায় সন্ত্রাসীদের ধারালো অস্ত্রের কোপে নিহত হন ড. একেএম শফিউল ইসলাম লিলন। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক মুহাম্মদ এন্তাজুল হক অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে মতিহার থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। তদন্তে বেরিয়ে আসে ব্যক্তিগত কোন্দলের জেরেই খুন হন শিক্ষক শফিউল ইসলাম। যার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কর্মকর্তা নাসরিন আখতার রেশমা। হত্যাকা-ে জড়িত সন্দেহে ২৩ নভেম্বর রেশমার স্বামী ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সাবেক সহসভাপতি আবদুস সামাদ পিন্টুসহ ৬ জনকে গ্রেফতার করে র‌্যাব।
পরে গোয়েন্দা পুলিশ রেশমাকেও গ্রেফতার করে। হত্যাকা-ের দায় স্বীকার করে রেশমা আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। এরই প্রেক্ষিতে রাজশাহী মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা শাখা ১১ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগ দাখিল করেন। সম্পাদনা : আজাদুল ইসলাম




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]