সিলগালা হলো কারওয়ান বাজারে বিজিএমইএ ভবন

আমাদের নতুন সময় : 17/04/2019

স্বপ্না চক্রবর্তী : মালামাল সরিয়ে নিতে চার দফায় সময় বেঁধে দেয়ার পর গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টা ১৫ মিনিটে সিলগালা করা হয় ভবনটি। পরিবেশবাদীদের আন্দোলনের মুখে হাইকোর্টের দেয়া রায় বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে ভবনটি অপসারণের অংশ হিসেবে এর মধ্যে থাকা অফিসের মালামাল সরিয়ে নিতে চার দফায় সময় বেঁধে দেয়ার পর শেষ পর্যন্ত ভবনটি সিলাগালা করে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)। পরবর্তীতে কিছু নিয়মতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ভবনটিকে ভাঙ্গা হবে বলে জানান রাজউকের কর্মকর্তারা। এদিকে ভবনের স্থাবর সম্পত্তি বাবদ ৩ কোটি টাকার বেশি ক্ষতি হচ্ছে বলে দাবি করছেন পোশাক মালিক নেতারা।
ভবন সিলগালা করার পর রাজউকের পরিচালক (প্রশাসন) খন্দকার অলিউর রহমান বলেন, আজকে আমরা ভবন সিলগালা করলাম। আজকের কার্যক্রম স্থগিত। ভবনের অধিকাংশ মালামাল অপসারণ করা হয়েছে। যে মালামালগুলো রয়ে গেছে তা সরিয়ে নিতে রাজউকের কাছে আবেদন করা যাবে। রাজউক অনুমতি দিলে তারা সেগুলো অপসরণ করতে পারবে। তবে অনুমতি ছাড়া কেউ ভবনে প্রবেশ করতে পারবে না।
এর আগে মঙ্গলবার সকাল ১০টায় ভবনটি ভাঙ্গার কার্যক্রম শুরু হয়। গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এ ব্যাপারে সাংবাদিকদের বলেন, আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী বিজিএমইএ ভবন ভাঙ্গার মূল আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়েছে। এটি আসলে দীর্ঘ প্রক্রিয়া। হুট করে তো আর ভাঙা শুরু করা যাবে না। এর আগে বেশ কিছু প্রক্রিয়া আছে। ধাপে ধাপে চলবে ভাঙ্গার কাজ। তবে ভাঙার মূল প্রক্রিয়া আজ থেকেই শুরু হলো। এ ব্যাপারে রাজউকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অলিউর রহমান জানান, ভবনটি ভেঙে ফেলার কার্যক্রম শুরু হয়েছে। প্রথমে ভবনটির গ্যাস, বিদ্যুৎ ও পানিসহ সকল সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হবে। ভবনের একটি ব্যাংকের শাখার কার্যক্রম সরিয়ে নিতে কয়েক দফায় সময় বাড়িয়ে দেয়ার পর সন্ধ্যা ৭টা ১৫ মিনিটে আমরা ভবনটি সিলগালা করেছি। এর আগে রাজউকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জেসমিন আখতার জানিয়েছিলেন ভবনটি ভাঙতে ডিনামাইট ব্যবহার করা হবে। এরকম একটি দৃশ্য দেখতে কারওয়ানবাজারসহ হাতিরঝিলের আশেপাশের এলাকায় উৎসুক জনতার ভিড় তৈরি হয়। জেসমিন আখতার জানান, বিজিএমইএ ভবনটি সম্পূর্ণ ভাঙতে সাত দিন সময় লাগবে। প্রথমে ভবনটি বিভিন্ন স্তরে ভাঙা শুরু করবো। পরে ডিনামাইট ও বুলডোজার ব্যবহার করে ভাঙার কাজ শেষ করা হবে। সম্পাদনা : রেজাউল আহসান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]