গুলির শব্দে ঘুম ভাঙে স্থানীয়দের

আমাদের নতুন সময় : 30/04/2019

মাসুদ আলম : রাজধানীর বসিলার মেট্রো হাউজিংয়ের ৯ নম্বর সড়কের শেষ মাথায় বাঁশ ও টিনের তৈরি তিন কক্ষের একটি বাড়ি। গতকাল ভোররাতের দিকে র‌্যাব কর্মকর্তারা ওই বাড়িতে যান। দরজায় নক করার পর এক নারী সাড়া দেন। দরজা খোলার অনুরোধ করলে তিনি দরজা খুলে দেন। এরপর র‌্যাব সদস্যরা একটি কক্ষ থেকে জিকিরের শব্দ পায়। ওই নারীর কাছে জানতে চাওয়া হয়, ‘ভেতরে কারা জিকির করে, তাকে বের হতে বলেন।’ এ প্রশ্নের পরপরই গুলি শুরু হয়। পরে র‌্যাব ওই বাড়ির চারপাশে অবস্থান নেয় এবং বাড়িটি ঘিরে ফেলে। জঙ্গিদের সঙ্গে র‌্যাবের থেকে থেমে থেমে গোলাগুলি শুরু হয়। গুলির শব্দে ঘুম ভাঙে স্থানীয়দের। আতঙ্কিত হয়ে উঠে স্থানীয়রা। এক পর্যায়ে র‌্যাব সদস্যরা আশপাশের বাসিন্দাদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়।
জঙ্গি আস্তানার পাশের বাড়ির বাসিন্দা মো. হারুন-অর-রশিদ বলেন, রাত সাড়ে ৩টায় গুলির শব্দে ঘুম ভাঙ্গে। প্রায় ২০ মিনিট ধরে চলে গোলাগুলি। আতঙ্কে খাটের ওপর বসে রইলাম। এমন সময় হঠাৎ দরজায় ধাক্কা। ভয়ে আঁতকে উঠি। ভয়ে ভয়ে দরজা খুলে দেখি র‌্যাবের অনেক লোকজন। তাদের দেখে প্রথমে ভয় পেয়ে যাই। তারা বলল, পাশের বাড়িতে জঙ্গিদের সঙ্গে র‌্যাবের গোলাগুলি হচ্ছে। এখনই বেরিয়ে আসুন। এতে একটু ভরসা পাই। পরে ওনাদের সঙ্গে বেরিয়ে নিরাপদে চলে আসি। গুলির পাশাপাশি বোমা বিস্ফোরণের শব্দে আতঙ্কিত হয়ে পড়ে পুরো এলাকায়।
আরেক বাসিন্দা শফিকুল ইসলাম বলেন, রাত তিনটায় র‌্যাব সদস্যরা তার বাড়িতে আসেন। সামনের বাড়িতে অভিযান চলছে জানিয়ে নিরাপদে সরে যেতে বলেন। এর ১৫ মিনিট পর গুলির শব্দ পাওয়া যায়। পরে ভোর পাঁচটার দিকে বিকট শব্দ শোনা যায়।
পাশের বাড়ির ভাড়াটিয়া মিঠু হাওলাদার বলেন, আমি প্রায় ৮ মাস ধরে পরিবার নিয়ে এখানে ভাড়া থাকি। রোববার রাতে বিদ্যুৎ ছিল না। তাই বাসার ছাদে উঠি। বাড়ির অন্য বাসিন্দারাও ছাদে ওঠে। হঠাৎ গুলির শব্দ পাই। ওই এলাকার বেশিরভাগ প্লট ফাঁকা ও কিছু বাড়ি নির্মাণাধীন।সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]