ভারতের রাজনীতিতে এবার মোদীর জাত নিয়ে টানাটানি চলছে

আমাদের নতুন সময় : 11/05/2019

আসিফুজ্জামান পৃথিল : ভারতের রাজনীতিতে এবার চলছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জাত নিয়ে টানাটানি। তিনি নিজেকে নিচু জাতের দাবি করলেও, বিশেষত বহুজন সমাজবাদি পার্টি তার জাত নিয়ে প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছে। দলটির প্রধান মায়াবতীই প্রথম শুরু করেন জাত নিয়ে মন্তব্য। তিনি জাত নিয়ে প্রশ্ন তুললে মোদী বলেছিলেন, তিনি গুজরাটের ছোট জাতগুলোর মধ্যেও সবচেয়ে ছোট জাত থেকে এসেছেন। এর জবাবে মায়াবতী বলেছেন, ছোট বা নিচু জাত থেকে এলে আরএসএস কোনদিনই মোদীকে মেনে নিতো না। এএনআই।

মোদী এবং বিজেপি প্রথম থেকেই বলে আসছে, এসপি-বিএসপি জোট জাতকে ব্যবহার করে ভোট টানতে চাইছে। তারা ছোট জাতের দলিত মানুষের কাছে গিয়ে জাতের দোহাই দিচ্ছে। তখনই মোদী দাবি করেন তিনিও ছোট জাতের। তাই উত্তর প্রদেশের ভোটব্যাংক বলে পরিচিত দলিতদের উচিৎ তাকেই ভোট দেওয়া। উত্তরপ্রদেশ সহ সমগ্র হিন্দি বেল্টের রাজনীতিতে জাত সবসময়ই গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু। তখনই মায়াবতী বলেছিলেন, মোদী পরে জাত খোয়াতে পারেন, কিন্তু তিনি জন্মসূত্রে কখনই নিচু জাতের নন। তিনি শুক্রবার বলেন, ‘এসপি-বিএসপি জোটের সঙ্গে পেরে না উঠে মোদী বলছেন আমরা জাতবদী, বর্ণবাদী। তার কথা হাস্যকর এবং অপরিপক্ক। যারা নিজেরাই জাতপাতের শিকার তারা কিভাবে জাতবাদী হতে পারে! তিনি জন্মসূত্রে দলিত নন। পুরো দেশই তা জানেন। তিনি জাতের সূত্রমতে দলিত নন। আমাদের জোটের বিষয়ে তার এ ধরণের কথা বলা উচিৎ নয়।’

উত্তর প্রদেশের সাবেক মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, মোদী নিজের রাজনৈতিক উদ্দেশ্য চরিতার্থ করতে জাতকে ব্যবহার করছেন। মায়াবতী বলেন, ‘তিনি জন্মসূত্রে দলিত হলে আরএসএস কি তাকে মেনে নিতো? দেশ জানে, আরএসএস কল্যান সিং এর সঙ্গে কি করেছে। তারা বিরোধীদলগুলো সম্পর্কে যে শব্দ আর ভাষা ব্যবহার করে তাতেই বোঝা যায় বর্ণবাদী কে। তারা শুধুই ভিত্তিহীন অভিযোগ করতে পারে। দেশ জানে, বিজেপি আর ক্ষমতায় আসবে না।’ সম্পাদন : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]