শিক্ষা নয়, মুখ উজ্জ্বলে ফেসওয়াশ

আমাদের নতুন সময় : 11/05/2019

সালাহ্ উদ্দীন পল্লব
: ও চশ্মা মামু… আমার দুকান এইদিক! অইদিক কই যান?
: দাঁড়াও, আসছি… হ্যাঁ, বলো।

: নস্ট মল্লার দুকানে ক্যান গেছিলেন? জানেন না হে সব সুমে ট্যাকা বেশি রাখে? মল্লা মানুষ কিন্তুক লাভ তার বেশি করতেই হইবো।

: আরে বাদ দাও…
: কারে বাদ দিমু? যেই ব্যাডা রমজান মাসে বেশি লাভ করার তালে থাকে তারে বাদ দিমু কেম্নে!
: কি করবে বল? আমাদের আর করার কিই বা আছে?
: ওরে সব্বনাশ! তা আম্নেরা কি কি করছেন শুনি?

: আহা! খালি ভুল বোঝো। দেশে প্রতি নিয়ত কোথাও না কোথাও আন্দোলন হচ্ছে, পেপার পত্রিকায় লেখা হচ্ছে, টকশো হচ্ছে, দু’একজন রিট করছে আদালত… আর কি চাও বলো? ওহ! হ্যাঁ, ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাজও চলছে।
: দ্যাশের কুথাও না কুথাও কুনু না কুনু পলাপাইনের মুছুল্মানি হইতেছে, হের লাইগা আম্নের তাবিজের সাইজ কি কমছে ইট্টু?

: এই দেখো! একদম পচা কথা বলবে না। চা বানাও চা খাবো! তোমার দোকানে চা খেতে আসি, বকবক শুনতে না!
: আইচ্ছা মামু, আম্নে কিরটিব মানুষ। আম্নেরে এইভাবে বলা ঠিক হয় নাই। আম্নের তাবিজ থাকলেও কি না থাকলেও কি… আম্নেতো কিরটিব মানুষই থাকবেন!
: কথাটা ক্রিয়েটিভ।

: থুক্কু, আমি চাওলা, ভুলভাল কই, কিছু মনে লইয়েন না। তা নষ্ট মুল্লার দুকানে গেছিলেন ক্যান?
: একটা ফেস ওয়াস কিনতে গিয়েছিলাম। আমার আগেরটা শেষ হয়ে গেছে।
: হে হে হে হে হে হে হে… আম্নের মুতন মানুষের ফেস ওয়াসার লাগে! এই কতাও শুনতে হইলো!
: আবার কি হলো?

: আম্নে হইলেন কিরটিব লুক। আম্নের মুতন দ্যাশে আরো শ দুইশো কুড়ি কিরটিব লুক আছে। আম্নেগোর চাইয়া মাদ্রাসার মল্লাগুলা আরো কিরটিব! পড়াইন্যা স্যারগুলাও কিরটিব, নেতাগুলান কিরটিব, ডাক্তার গুলাও তাগো জায়গায় কিরটিব…
: তাতে কি হয়েছে? আরে চা-টা দাও না…

: আরে খাড়ান মিয়া! কি হইছে মানে? এত্ত এত্ত কিরটিব মানুষ দিয়া যেই দ্যাশ ভইরা রইছে সেই দ্যাশে পইত্যাক দিন ধর্ষণ হয় কেম্নে? ভেজাল জিনিস দিয়া বাজার ছয়লাব হয় কেম্নে? রমজান মাস সংযমের মাস না হইয়া লাভের মাস হয় কেম্নে? নকল ওষুধ খাইয়া মানুষ মরে কেম্নে? এইসব গুলা কইরা আবার তারাবির নমাজ পড়তে যায় কেম্নে? কুনো জবাব আছে আম্নের কাছে?

: না মামা, আসলে ব্যাপারটা বোঝো… একটা সিস্টেম…
: আবার কতা কয়! আমি জানি এডি ক্যান হয়। এই ফেস ওয়াসার হইলো এইগুলানের কারণ! আম্নেরা পড়ালেখা কইরাও নিজের মুখ উজ্জ্বল করতে পারেন নাই, এই সব দুই লম্বরী কাম গুলা আম্নেগো মুতন শিক্ষিত গুলানই করতাছে। তারপরে নিজেগো মুখ উজ্জ্বল করণের লাইগা ফেস ওয়াসার করেন মিয়া। যেই জাতির শিক্ষিত লুকগুলা ফেস ওয়াসার খুঁজে তাগো শিক্ষারে আমি আন্ডারপেন্টের দামও দেই না। বেশি দাম রাখে বইল্যা আমি নষ্ট মল্লারে চা বেচি না। আম্নেরাও এমন কিছু কইরা তাগোরে আলাদা করেন। ততোদিন আমার দুকানে আম্নের চা খাওয়া বন্ধ! যান, বাড়িত যান আর নিজের তাবিজে ফেস ওয়াসার মাখেন গিয়া!




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]