আগামী অর্থবছরে বাজেট ঘাটতি দাঁড়াতে পারে দেড় লাখ কোটি টাকার বেশি

আমাদের নতুন সময় : 12/05/2019

সোহেল রহমান : চলতি অর্থবছরের তুলনায় আগামী নতুন অর্থবছরে বাজেট ঘাটতি আরও বাড়ছে। আসন্ন বাজেটে সার্বিক ঘাটতির পরিমাণ দাঁড়াতে পারে ১ লাখ ৫৩ হাজার কোটি টাকা। এটি জিডিপি’র ৫ শতাংশ। চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরের মূল বাজেটে সার্বিক ঘাটতির পরিমাণ ধরা হয়েছে ১ লাখ ২৫ হাজার ২৯৩ কোটি টাকা। এটি হচ্ছে জিডিপি’র ৪ দশমিক ৭ শতাংশ। টাকার অঙ্কে মোট বাজেট ঘাটতি বাড়ছে ২৭ হাজার ৭০৭ কোটি টাকা।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগ সূত্রে জানা যায়, আসন্ন বাজেটে সার্বিক রাজস্ব আদায়ের যে প্রাথমিক প্রক্ষেপণ করা হয়েছিল, রাজস্ব আদায়ের গতিধারা পর্যালোচনায় সেই লক্ষ্যমাত্রা কিছুটা কমানো হয়েছে। এর ফলে চলতি অর্থবছরের তুলনায় বাজেট ঘাটতি কিছুটা বাড়ছে।

জানা যায়, প্রাথমিক প্রক্ষেপণ অনুযায়ী, আগামী বাজেটে সার্বিক রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৩ লাখ ৭৭ হাজার ২৫০ কোটি টাকা। এটি কাটছাঁট করে নতুন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৩ লাখ ৭২ হাজার কোটি টাকা। অর্থাৎ ৫ হাজার ২৫০ কোটি টাকা কমানো হয়েছে। এর ফলে প্রাথমিক প্রক্ষেপণের তুলনায় বাজেট ঘাটতি আরও ৭ হাজার ৫০ কোটি টাকা বাড়ছে।  আগামী অর্থবছরে বাজেট ঘাটতির প্রাথমিক প্রক্ষেপণ করা হয়েছিল ১ লাখ ৪৫ হাজার ৯৫০ কোটি টাকা। এখন এটি বেড়ে দাঁড়াচ্ছে ১ লাখ ৫৩ হাজার কোটি টাকা।

জানা যায়, আসন্ন বাজেটে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)-এর আওতাধীন রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৩ লাখ ২০ হাজার টাকা। চলতি অর্থবছরে এ খাতে আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা হচ্ছে ২ লাখ ৯৬ হাজার ২০১ কোটি টাকা। অর্থাৎ আগামী অর্থবছরে এনবিআর-কে ২৩ হাজার ৭৯৯ কোটি টাকা অধিক রাজস্ব আয় করতে হবে। এছাড়া নতুন বাজেটে এনবিআর-বহির্ভূত রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ১৪ হাজার কোটি টাকা এবং কর ব্যতীত প্রাপ্তি খাতে ৩৮ হাজার কোটি টাকা আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণের প্রস্তাব করা হয়েছে। চলতি অর্থবছরের মুল বাজেটে এ দুই খাতে আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে যথাক্রমে ৯ হাজার ৭২৭ কোটি টাকা এবং ৩৩ হাজার ৩৫২ কোটি টাকা।

জানা যায়, সার্বিকভাবে নতুন বাজেটের আকার হতে পারে ৫ লাখ ২৫ হাজার কোটি টাকা। মধ্য মেয়াদী সামষ্টিক অর্থনৈতিক কাঠামোর হিসাব অনুযায়ী, আগামী অর্থবছরের বাজেটের মোট আকার ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা নির্ধারণের প্রস্তাব করা হয়েছিল।

প্রসঙ্গত: চলতি অর্থবছরের মূল বাজেটের আকার নির্ধারণ করা হয়েছিল ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৫৭৩ কোটি টাকা। সে হিসাবে নতুন বাজেটের আকার বাড়ছে ৬০ হাজার ৪২৭ কোটি টাকা। কিন্তু সংশোধিত বাজেটে মূল বাজেটের আকার থেকে প্রায় ২১ হাজার ৯০০ কোটি টাকা কাটছাঁট করা হতে পারে বলে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগ সূত্রে জানা যায়। এ প্রেক্ষিতে চলতি অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটের আকার দাঁড়াবে ৪ লাখ ৪২ হাজার ৬৭৩ কোটি টাকা। সংশোধিত বাজেটের আকারের সঙ্গে তুলনা করলে আসন্ন বাজেটের প্রকৃত আকার বাড়বে ৮২ হাজার ৩২৭ কোটি টাকা।

অন্যান্যের মধ্যে, আগামী অর্থবছরের বাজেটে জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার ৮ দশমিক ২ শতাংশ নির্ধারণ করা হচ্ছে বলে জানা গেছে। চলতি বছর শেষে জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার ৮ দশমিক ১৩ শতাংশ দাঁড়াবে বলে ইতোমধ্যেই বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো পূর্ভাবাস ব্যক্ত করেছে। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]