• প্রচ্ছদ » » আমার বন্ধু ‘ছারপোকা ছালাম’ এবং এদেশের তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়


আমার বন্ধু ‘ছারপোকা ছালাম’ এবং এদেশের তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়

আমাদের নতুন সময় : 12/05/2019

আরিফ জেবতিক

জাকির হোসেন রোডে আমাদের মেসে এক বন্ধু ছিলো, নাম সালাম। কিন্তু তার নাম হয়ে গিয়েছিলো, ‘ছারপোকা ছালাম’। এই অদ্ভুত নামকরনের যুক্তি ছিলো। সালামের একমাত্র শখ ছিলো ছারপোকা মারা। মেসে অনেক বিছানাতেই ছারপোকা থাকে। সে নিজের তোষকের ছারপোকা মারার পরে মহানন্দে অন্যের তোষকের ছারপোকা মারতে যেতো। ছারপোকা মারা খারাপ কাজ নয়, কিন্তু নাওয়া খাওয়া বাদ দিয়ে ছারপোকা মারা একটা জঘন্য নেশা। দেখা যেতো পরদিন হয়তো ইনকোর্স আছে, অথবা কোর্স ফাইনাল। পড়তে পড়তে সবার চান্দি গরম। কিন্তু ছারপোকা ছালামের পড়াশোনায় মন নেই। তাগাদা দিলেই বলতো, ‘দাঁড়া, দাঁড়া, আর কয়েকটা মেরে ফেলি আগে’। সেই রাতে লেখাপড়া করা যে ছারপোকা মারার চাইতে বেশি জরুরি, এটা ছারপোকা ছালামরে বুঝানো যেতো না।
সালামের সাথে অনেক অনেক বছর ধরে যোগাযোগ নেই। কোথায় আছে, কী করছে জানি না। তবে আমার মনে ইদানীং ক্ষীণ সন্দেহ হয় যে, সে সম্ভবত আমাদের তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের কোনো বড় কর্তা হয়েছে। ইন্টারনেট এক অপার সম্ভাবনার জায়গা। সবগুলো দেশ ইন্টারনেটকে ব্যবহার করে ব্যবসা-বাণিজ্য, গবেষণা, জনসুবিধা নিশ্চিত করে তরতর করে এগিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু আমাদের তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের প্রায়োরিটি হচ্ছে পর্নো সাইট বন্ধ করা। পর্নোসাইট বন্ধ করা খারাপ কাজ নয়, কিন্তু সেটা সবচাইতে জনগুরুত্বপূর্ণ কাজ হতে পারে না আইটি মন্ত্রণালয়ের।
জানা যাচ্ছে যে আপওয়ার্ক.কম ওয়েবসাইটটি বøক হয়ে গিয়েছে! অনেকে বলছে যে ৎশ(.)পড়স নামে একটি এডাল্ট সাইট বøক করতে গিয়ে সম্ভবত বিটিআরসি থেকে ওয়েবসাইট এড্রেসের শেষে ৎশ(.)পড়স আছে এমন সব সাইট বøক করে ফেলেছে। আপওয়ার্ক হচ্ছে এদেশের হাজার হাজার ফ্রিল্যান্সারদের কাজ করার ঠিকানা। দিনের পর দিন পরিশ্রম করে, রাত জেগে জেগে তারা নিজ যোগ্যতায় যে ফ্রিল্যান্স কাজ করে দেশের জন্য দুটো বৈদেশিক মুদ্রা আয় করে, সেখানে আপওয়ার্ক একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ সাইট। এখন একদল পর্নোম্মাদ লোকের হাতে পরে ধুমধাম যে এভাবে সাইট বন্ধ হয়ে গেল, এর জবাব কে দেবে? আপওয়ার্ক.কম সাইটটি হয়তো আবার চুপিচুপি চালু করে দেবে (কারণ আমাদের কুতুবরা কোন সাইট বন্ধ করছে, কোনটা খুলছে, এ বিষয়ে কখনো কিছু বলেন না। কোনো জবাবদিহিতা নেই।) কিন্তু আমাদের ফ্রিল্যান্সাররা এই ঘটনায় বড়সড় আকারে মার্কেট হারাবে। ক্লায়েন্টরা চিন্তা করবে, বাংলাদেশে কাজ দিয়ে লাভ নেই। এদেশের সরকার যদি হুটহাট সাইট বন্ধ করে দেয়, তাহলে কাজের ডেলিভারি পাবো না। এই যুগ প্রবল প্রতিযোগিতার যুগ। এই যুগে কোথায় কোন তালেবরে কী ভুল করলো তা গোনার সময় নেই বাকি দুনিয়ার।
ইন্টারনেট দিয়ে আমরা কতো কিছুই যে করতে পারতাম বা পারবো, সেটা নিয়ে প্রতিনিয়ত কাজ করার দরকার আছে। কিন্তু এর দায়িত্ব দেয়া হয়েছে ছারপোকা ছালামের মতো লোকদের হাতে। দুঃখের বিষয় হচ্ছে এই ছারপোকা ছালামদের নামও নিতে পারছি না, নাম বললে চাকরি থাকবে না, একাউন্টও হয়তো থাকবে না।
লেখক : অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]