• প্রচ্ছদ » গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ » জুলহাস মান্নান ও রাব্বী তন্ময়  হত্যা মামলার অভিযোগপত্র প্রস্তুত, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের অপেক্ষা


জুলহাস মান্নান ও রাব্বী তন্ময়  হত্যা মামলার অভিযোগপত্র প্রস্তুত, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের অপেক্ষা

আমাদের নতুন সময় : 13/05/2019

সুজন কৈরী : রাজধানীর কলাবাগানের আলোচিত জুলহাস মান্নান ও মাহবুব রাব্বী তন্ময় হত্যাকান্ডের তদন্ত শেষ। অভিযোগপত্র প্রস্তুত করেছে ডিএমপির কাউন্টার টেররিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট (সিটিটিসি)। এতে ৮জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। এরমধ্যে ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গতকাল রোববার অভিযোগপত্রটি অনুমোদনের জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের পর আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হবে।

সিটিটিসি সূত্র জানায়, অভিযুক্তদের মধ্যে গ্রেফতার ৪ জন হলো- আনসার আল ইসলামের মিডিয়া শাখার প্রধান এবং ইন্টেলিজেন্স সদস্য মোজাম্মেল হুসাইন ওরফে সায়মন (২৫), সামরিক শাখার সদস্য ও সমন্বয়ক মো. আরাফাত রহমান (২৪), ইন্টেলিজেন্স শাখার প্রধান  শেখ আব্দুল্লাহ (২৭) ও সামরিক শাখার সদস্য আসাদুল্লাহ (২৫)। তারা আদালতে ঘটনায় সংশ্লিষ্টতা স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছে। এ ঘটনায় অপর ৪ জন আসামী পলাতক রয়েছে। তারা হলো- চাকুরিচ্যুত মেজর সৈয়দ মোহাম্মদ জিয়াউল হক ওরফে মেজর জিয়া (৪২), আকরাম  হোসেন (৩০), সাব্বিরুল হক চৌধুরী (২৬) ও মো. জুনাইদ আহমদ ওরফে মাওলানা জুনেদ আহম্মদ ওরফে জুনায়েদ (২৬)।

সূত্র জানায়, মামলাটি তদন্তকালে হত্যাকান্ডের সঙ্গে সরাসরি জড়িত ১৩ জনের সম্পৃক্ততা পায় সিটিটিসি। ঘটনায় সম্পৃক্ত অপর ৫ জন আসামীর শুধুমাত্র সাংগঠনিক নাম জানতে পারে সিটিটিসি। পূর্নাঙ্গ নাম ঠিকানা সংগ্রহ করা সম্ভব না হওয়ায় ৮ জনকে অভিযুক্ত করে অভিযোগপত্রটি প্রস্তুত করা হয়। পলাতক আসামীদের অদূর ভবিষ্যতে গ্রেফতার করা সম্ভব হলে সম্পূরক অভিযোগপত্র দাখিল করা হবে। মামলার দীর্ঘ তদন্ত শেষে আসামীদের জবানবন্দি এবং অন্যান্য সাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে মামলার তদন্তকারী সংস্থা জানতে পারে, ঘটনার সঙ্গে জড়িত আসামীরা নিষিদ্ধ ঘোষিত সন্ত্রাসী সংগঠন আনসার আল ইসলামের বিভিন্ন পর্যায়ের সক্রিয় সদস্য। সংগঠনের নেতা মেজর জিয়ার নির্দেশে সংগঠনের সামরিক শাখার সদস্যরা এ হত্যাকান্ডটি ঘটায়।

২০১৬ সালের ২৫ এপ্রিল রাজধানীর জুলহাস মান্নান ও তার বন্ধু মাহবুব রাব্বী তন্ময়কে সন্ত্রাসীরা নৃসংসভাবে হত্যা করে। এ ঘটনায় কলাবাগান থানায় হত্যা মামলা দায়ের হয়। প্রথমে ডিএমপির ডিবি মামলাটি তদন্ত করে। পরে সিটিটিসি তদন্তভার গ্রহণ করে এবং ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ৪জন আসামীকে গ্রেফতার করে। সম্পাদনা : আহমেদ শাহেদ।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]