শিক্ষিত বেকার যুবকদের টার্গেট প্রতারক চক্রটির, গ্রেফতার ৬

আমাদের নতুন সময় : 14/05/2019

মাসুদ আলম : রাজধানীর মিরপুর ও খিলক্ষেত এলাকায় অভিযান চালিয়ে সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্রের ৬ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৪। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- মানিক চাঁদ ওরফে রাজ, রতন হোসেন, ইসমাইল হোসেন, এস এম আলাউদ্দিন আল মামুদ, শরিফুল ইসলাম। চক্রটি সেনাবাহিনী, বাংলাদেশ পুলিশ, কারারক্ষী, পেট্রোবাংলা, জিটিসিএল, পিডিবি, ভূমি মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা করে আসছে। সোমবার কারওয়ান বাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন র‌্যাব-৪ অধিনায়ক চৌধুরী মঞ্জুরুল কবির।

তিনি বলেন, রোববার সকাল থেকে  সোমবার সকাল পর্যন্ত এ অভিযান চলে। চক্রটি  ২৫ থেকে ২৬ জনের কাছ থেকে দুই থেকে আড়াই কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। এদের দলনেতা মানিক চাঁদ। সে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিষয়ে পড়েছে। নিজেকে ম্যাজিস্টেট বলে পরিচয় দিতো। রূপনগরে তার সুসজ্জিত একটি অফিস ছিলো। সেখানে বসে  বিভিন্ন পদে চাকরি দেওয়ার নাম করে টাকা হাতিয়ে নিতো মানিক। দুই থেকে আড়াই বছর ধরে প্রতারণা চালিয়ে আসছিল। চক্রটি পাবনা, সিরাজগঞ্জ, নাটোর, কুষ্টিয়া প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে লোক সংগ্রহ করতো। তাদের মূল লক্ষ্য হচ্ছে শিক্ষিত, বেকার, চাকরী প্রত্যাশী যুবকদের।

অধিনায়ক আরও বলেন, ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে নেওয়া ব্ল্যাংক চেক ও ষ্ট্যাম্পের উপর ভিত্তি করে উল্টো তাদের বিরুদ্ধে মামলা করে চক্রটি। চাকুরী প্রত্যাশীরা মামলা থেকে রক্ষা পেতে প্রতারকচক্রের সাথে আপোষ করে। তারা পাওনাকৃত টাকা চায় না, ভুক্তভোগীরা যে মামলা করেছিল তা তুলে নেয়। রাশেদুল ইসলাম লিটন নামে সিরাজগঞ্জের এক ভুক্তভোগী বলেন, আলাউদ্দিন নিজেকে এসআই  পরিচয় দিয়েছিল তার কাছে। তার ভাতিজাকে পুলিশে চাকরি দেওয়ার কথা বলে ১২ লাখ টাকা নিয়েছিল।  চাকরি না দিয়ে উল্টো লিটনের নামে তিনটি মামলা করা হয়। লিটন নাকি বিদেশ লোক পাঠানোর কথা বলে ইসমাইল ও রতনের কাছ থেকে ৩০ লাখ টাকা নিয়েছি। সম্পাদনা : আহমেদ শাহেদ।

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]