বিদেশি মুদ্রার রিজার্ভ কমে গেছে

আমাদের নতুন সময় : 15/05/2019

রমজান আলী : মুদ্রার রিজার্ভ হঠাৎ কমেছে গেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ৮ মে বাংলাদেশ ব্যাংকের বিদেশি মুদ্রার রিজার্ভ দাঁড়ায় ৩০ দশমিক ৯৯ বিলিয়ন ডলারে। ২০১৮ সালের ৮ মে রিজার্ভ ছিলো ৩১ দশমিক ৯২ বিলিয়ন ডলার।

স্বাধীনতার পর শূন্য হাতে শুরু করে এক সময় ৩৩ বিলিয়ন (তিন হাজার ৩০০ কোটি) ডলার ছাড়ায় বিদেশি মুদ্রার রিজার্ভ। এই উত্থান বেশিদিন আগের নয়। ২০১১-১২ অর্থবছরেও রিজার্ভ ছিলো ১০ বিলিয়ন ডলারের ঘরে। গত ছয় অর্থবছরে রিজার্ভে অভাবনীয় উল্লম্ফন দেখা দিলেও গত দুই-আড়াই বছর ধরে ৩১-৩২ বিলিয়ন ডলারের ঘরে ওঠানামা করতে থাকে। সর্বশেষ গত সপ্তাহে সেই রিজার্ভ ৩১ বিলিয়ন ডলারের নিচে নেমে এসেছে।

জানা গেছে, বাংলাদেশ ব্যাংকের বিদেশি মুদ্রার রিজার্ভ প্রথম ৩৩ বিলিয়ন ডলার ছাড়ায় ২০১৭ সালে ২২ জুন। প্রতি মাসে সাড়ে তিন বিলিয়ন ডলার আমদানি খরচ হিসাবে ওই রিজার্ভ দিয়ে ৯ মাসের বেশি সময়ের আমদানি ব্যয় মেটানো সম্ভব ছিলো।

২০১৭ সালের আগস্টে রিজার্ভ বেড়ে সর্বোচ্চ ৩৩ দশমিক ৬৫ বিলিয়ন ডলারে অবস্থান করে। এরপর অবশ্য আর কখনও রিজার্ভ এমন উচ্চতা পায়নি। কয়েক দফা ওঠানামার পর সর্বশেষ রিজার্ভ ৩০ বিলিয়ন ডলারের ঘরে নেমে এসেছে।

বেশ কয়েকটি মেগা প্রকল্পের কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে যাওয়া এবং রমজানে পণ্য আমদানিতে খোলা এলসির (ঋণপত্র) দেনা পরিশোধের জন্য সম্প্রতি ব্যাংকগুলোর বাড়তি ডলারের প্রয়োজন দেখা দেয়। গত কয়েক মাস ধরে ডলার বিক্রি করছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক কাজী ছাইদুর রহমান জানান, চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরের এ পর্যন্ত ব্যাংকগুলোর কাছে ২১৩ কোটি ৬০ লাখ ডলার বিক্রি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ২০১৭-১৮ অর্থবছরের পুরো সময়ে ব্যাংকগুলোর কাছে ২৩১ কোটি ডলার বিক্রি করে সংস্থাটি। অর্থাৎ চলতি অর্থবছরে ডলার বিক্রির প্রবণতাও বেড়েছে। সম্পাদনা : রেজাউল আহসান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]