খালেদা জিয়াকে কোথায় রাখলেবিএনপি খুশি হবে তা বুঝছেন না তথ্যমন্ত্রী

আমাদের নতুন সময় : 16/05/2019

আনিস তপন : বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থানান্তরের বিষয়ে দলটির প্রতিক্রিয়ার জবাবে, তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আসলে তাকে কোথায় রাখলে যে বিএনপির নেতারা খুশি হবেন তা বুঝতে পারছি না। তিনি বলেন, ঢাকার সাবেক কেন্দ্রীয় কারাগারে খালেদা জিয়াকে রাখার পর দলটির পক্ষ থেকে বার বার অভিযোগ করে বলা হয়েছে, তাকে পুরনো একটি বিল্ডিংয়ে স্যাঁতস্যাঁতে পরিবেশে রাখা হয়েছে। অথচ শুধু খালেদা জিয়ার জন্য সেই অংশটিকে নতুনভাবে তৈরি করা হয়েছিলো। আধুনিক সব সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করা হয়েছিলো। এরপরও বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হলো, পুরনো ভবনে নির্জন কারাগারে তাকে রাখা হচ্ছে, যেখানে অন্য কোনো বন্দি নেই।

কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগার নতুন একটি আধুনিক ভবন। সেখানেও সব সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করা হয়েছে। আগে বিএনপির অভিযোগ থাকলেও এখন তো তাদের খুশি হওয়ার কথা।

বুধবার সচিবালয়ের নিজ দপ্তরে ভারতের রাষ্ট্রদূত রিভা গাঙ্গুলি দাসের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

বাংলাদেশ একটি অকার্যকর রাষ্ট্র, সম্প্রতি বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন মন্তব্যের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, আসলে বিএনপি একটি অকার্যকর দলে পরিণত হয়েছে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ উন্নয়নের মহাসড়কে অদম্য গতিতে এগিয়ে চলছে। স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে বাংলাদেশ এখন মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হয়েছে, খাদ্য ঘাটতির দেশ থেকে খাদ্য উদ্বৃত্ত দেশে পরিণত হয়েছে। মানুষের মাথাপিছু আয় এখন ২ হাজার ডলার, দারিদ্র্য ৪০ শতাংশ থেকে ২০ শতাংশে নেমে এসেছে আর মানুষের গড় আয়ু উন্নীত হয়েছে ৭৩ বছরে। সুতরাং রাষ্ট্র এগিয়েছে। বিপরীতে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেবদের নেতৃত্বে বিএনপি একটি অকার্যকর দলে পরিণত হয়েছে।

ঢাকায় নিযুক্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত রিভা গাঙ্গুলির সাক্ষাৎ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, বৈঠকে দুই দেশের যৌথ প্রযোজনায় ‘বঙ্গবন্ধু’র উপর নির্মিতব্য ছবিসহ ভারত-বাংলাদেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর উপর নির্মিতব্য ছবির কাজ ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে উল্লেখ করে হাছান মাহমুদ বলেন, ছবির স্ক্রিপ্ট রাইটার আগামী সপ্তাহে বাংলাদেশে আসছেন।

বিখ্যাত পরিচালক শ্যাম বেনেগাল ছবিটি পরিচালনা করবেন উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ছবিটিতে বাংলাদেশের মালিকানা ৬০ শতাংশ এবং ভারতের মালিকানা ৪০ শতাংশ হবে। তাছাড়া বাংলাদেশের টিভি চ্যানেলগুলো ভারতে দেখানোর ব্যাপারেও হাইকমিশনারের সঙ্গে আলোচনায় অগ্রগতি হয়েছে। সম্পাদনা : রেজাউল আহসান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]