• প্রচ্ছদ » গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ » দীর্ঘদিন ধরে সরবরাহ থাকায় একটা চাহিদা তৈরি হয়েছে বলেই মাদকের এই বিচরণ সহজে থামানো যাবে না, বললেন ড. জিয়া রহমান


দীর্ঘদিন ধরে সরবরাহ থাকায় একটা চাহিদা তৈরি হয়েছে বলেই মাদকের এই বিচরণ সহজে থামানো যাবে না, বললেন ড. জিয়া রহমান

আমাদের নতুন সময় : 16/05/2019

সৌরভ নূর : মাদক সমস্যা একটি রোগের মতো। রোগ যখন চরম আকার ধারণ করে তখন সবার টনক নড়ে। তাই একে বেশি বাড়তে দেয়া যায় না। সেই লক্ষ্যে মাদকবিরোধী অভিযান শুরু হয়েছিলো ২০১৮ সালে। অভিযানের এক বছর পরে এসে দেখা যাচ্ছে তেমন সুফল পাওয়া যায়নি। এতো কিছুর পরেও মাদক নেয়া কিংবা বিক্রির মতো অপরাধপ্রবণতা থেকে মানুষকে কেন সরিয়ে আনা যাচ্ছে না এ প্রসঙ্গে অপরাধবিজ্ঞানী অধ্যাপক জিয়া রহমান বলেন, সরকারিভাবে ধরে নেয়া হয়, দেশে ৬০-৭০ লাখ লোক মাদকাসক্ত। আমাদের দেশে কোনো মাদক উৎপন্ন বা তৈরি হয় না। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে সরবরাহ থাকায় একটা চাহিদা তৈরি হয়েছে। ফলে মাদকের এই বিচরণ সহজে থামানো যাবে না। মাদকের আগ্রাসন থামাতে সরবরাহ বন্ধের দিকে নজর দিতে হবে।

সেটা না করে দেশের অভ্যন্তরে এ ধরনের অভিযান একপক্ষীয় ভূমিকা পালন করবে। বিজিবিসহ সব সংস্থার সমন্বয়ে আরো জোরালো অভিযান চালাতে হবে। পাশাপাশি যুব সমাজকে মাদক থেকে দূরে রাখতে সচেতনতামূলক উদ্যোগ নিতে হবে। এখানে আমরা এখনো অনেকটা পিছিয়ে আছি। মূলত মাদকের চাহিদার বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করা উচিত। চাহিদা থাকায় এটাকে সহজে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হচ্ছে না।

তবে যতোদিন পর্যন্ত অবস্থা স্বাভাবিক পর্যায়ে না আসবে ততোদিন মাদকের বিরুদ্ধে এ অভিযান অব্যাহত রাখতেহ হবে। পাশাপাশি প্রচার-প্রচারণা বাড়াতে হবে, রিহ্যাব সেন্টার বাড়াতে হবে। শুধু মানুষ হত্যা করে কিংবা মানুষকে দমন করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ করা কখনোই সম্ভব হবে না।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]