ব্যাংক ঋণ নিয়ে কেনা ৫০০ কোটি টাকার চিনি গুদামে কেন, জানতে চায় সংসদীয় কমিটি!

আমাদের নতুন সময় : 16/05/2019

আসাদুজ্জামান স¤্রাট : চিনি ও খাদ্য শিল্প করপোরেশন ২০১৬-১৭ অর্থবছরে অগ্রণী ব্যাংক থেকে ৫০০ কোটি টাকা ঋণ নিয়ে চিনি কিনে গুদামজাত করেছিল। সেই চিনি এখনও বিক্রি না করে গুদামেই ফেলে রাখা হয়েছে। দীর্ঘদিন গুদামজাত থাকায় এর গুনগত মান নষ্ট হচ্ছে এবং সরকারের বিপুল পরিমাণ অর্থের অপচয় হচ্ছে। জাতীয় সংসদের সরকারি প্রতিষ্ঠান কমিটির বৈঠকে এ বিষয়ে আলোচনাকালে কমিটির সদস্যরা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। গতকাল বুধবার জাতীয় সংসদে অনুষ্ঠিত বৈঠকে গুদামে চিনি ফেলে রাখার বিষয়ে ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি আ স ম ফিরোজ বলেন, ৫০০ কোটি টাকা ঋণ নিয়ে কেন চিনি কেনা হলো? সেই চিনি এখনও কেন গুদামে? মিলের উৎপাদিত চিনি বিক্রি হয় না। অথচ দেশের বাইরে থেকে চিনি কিনে গুদামে ফেলে রাখা হয়েছে কার স্বার্থে? এসব প্রশ্নের সদুত্তর দিতে পারেনি করপোরেশন বা মন্ত্রণালয়। কমিটি এ ঘটনায় অসন্তোষ প্রকাশ করেছে। বিষয়টি তদন্ত করে পরবর্তী বৈঠকে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে।

এদিকে বৈঠকে আখ চাষীদের বকেয়া প্রায় দেড়শ’ কোটি টাকা ঈদের আগেই পরিশোধ করার জন্য চিনি শিল্প করপোরেশনকে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য বলেছে সংসদীয় কমিটি। চলতি অর্থবছর পর্যন্ত আখ চাষীরা করপোরেশনের কাছে ১১৯ কোটি টাকা পাবে। এর বাইরে বীজ সরবরাহকারীরা পাবে প্রায় ৩১ কোটি টাকা।

 

এদিকে বেসরকারি চিনি কারখানার মালিকরা নিয়ম ভঙ্গ করছেন বলে বৈঠকে আলোচনা হয়। নিয়ম অনুযায়ী বিদেশ থেকে আমদানি করা অপরিশোধিত চিনির ৫০ ভাগ দেশের বাইরে বিক্রি করছে না বলে বৈঠকে জানানো হয়। এতে করে দেশীয় মিলে উৎপাদিত চিনি বিক্রি হয় না বলে কমিটির আলোচনায় উঠে আসে। এ বিষয়ে কমিটি বলছে, বেসরকারি চিনি কলগুলো যদি নিয়ম ভাঙে তবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে।

 

এছাড়া বৈঠকে কমিটি কাটার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আখ মাড়াইয়ের সুপারিশ করেছে। এছাড়া ইক্ষু গবেষণা কেন্দ্রটি কৃষি মন্ত্রণালয় থেকে শিল্প মন্ত্রণালয়ের অধীনে ফিরিয়ে আনা যায় কী না তা নিয়ে মন্ত্রিসভায় আলোচনার পরামর্শ দেয়া হয়। সম্পাদনা : ওমর ফারুক




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]