• প্রচ্ছদ » » চলচ্চিত্র অনুদানের ইতিহাসে এ বছর সবচেয়ে জঘন্য ঘটনা ঘটেছে


চলচ্চিত্র অনুদানের ইতিহাসে এ বছর সবচেয়ে জঘন্য ঘটনা ঘটেছে

আমাদের নতুন সময় : 17/05/2019

রেজা ঘটক

প্রথমে চলচ্চিত্র অনুদান নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ প্রকাশ পেলো। সেই অভিযোগ আমলে নিয়ে অনুদান কমিটির হেভিওয়েট চার সদস্য পদত্যাগ করলেন। পদত্যাগের দুইদিন পর আবার শাসকের ধমক খেয়ে সেসব মহামান্যরা আবার পদত্যাগপত্র প্রত্যাহার করলেন। চলচ্চিত্রে অনুদান পাওয়া ছবিগুলোর প্রজ্ঞাপন প্রকাশ করা হলো। প্রজ্ঞাপন প্রকাশ করার ১০-১২ দিন পর আবার অনুদান কমিটির সভা আহŸান করা হলো। এবার ঢাকঢোল পিটিয়ে আরো একটি চলচ্চিত্রকে অনুদান প্রদানের ঘোষণা দেয়া হলো। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের ইতিহাসে বিশেষ করে চলচ্চিত্রে সরকারি অনুদান দেয়ার এই জঘন্য অনিয়মটি চলচ্চিত্র জগতের সবার কাছে এখন ওপেন সিক্রেট ঘটনা। একটা দেশের সিস্টেমে কতোটা অধঃপতন হলে চলচ্চিত্রে জাতীয় অনুদান প্রদানের ক্ষেত্রে একটি শাসকগোষ্ঠী এতোটা বেহায়া আচরণ করতে পারে! লজ্জা! লজ্জা! এখন আবার চলচ্চিত্রের সার্টিফিকেশনের উপর দমনমূলক আইন প্রবর্তনের তোড়জোড় শোনা যাচ্ছে। সেন্সর না নিয়ে দেশের বাইরে নাকি চলচ্চিত্র পাঠানো যাবে না। অনলাইনে টিজার, ট্রেলার প্রকাশ করা যাবে না। পোস্টার করা যাবে না। দেশটা একটা মগের মুলুকে ভরে গেছে। তার চেয়ে একটা ঘোষণা দিলেই তো হয় যে… এদেশে চলচ্চিত্রের প্রয়োজন নেই! শালার … একটা দেশে বাস করছি! ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]