• প্রচ্ছদ » আমাদের বিশ্ব » শেষদফায় পশ্চিমবঙ্গে প্রচারণার সময় কমিয়েছে নির্বাচন কমিশন, বাংলার মানুষের অপমান বললেন মমতা


শেষদফায় পশ্চিমবঙ্গে প্রচারণার সময় কমিয়েছে নির্বাচন কমিশন, বাংলার মানুষের অপমান বললেন মমতা

আমাদের নতুন সময় : 17/05/2019

সান্দ্রা নন্দিনী : ভারতের লোকসভা নির্বাচনের সপ্তম ও শেষদফা ভোটে পশ্চিমবঙ্গে প্রচারণা চালানোর সময়সীমা কমিয়ে দিয়েছে দেশটির নির্বাচন কমিশন। মঙ্গলবার বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের মিছিলকে কেন্দ্র করে তৃণমূলের সঙ্গে সংঘর্ষের জেরে নজিরবিহীন এ সিদ্ধান্ত নেয় কমিশন। এনডিটিভি, পিটিআই।

পশ্চিমবঙ্গে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি এবং পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতা না পাওয়ার কারণ দেখিয়ে বৃহস্পতিবার রাত ১০টার পর থেকে রাজ্যে শেষ দফার ভোট প্রচার বন্ধ করে দেওয়া হয়। সেখানে ৯টি আসনে আগামী ১৯ মে ভোট হওয়া কথা রয়েছে। এছাড়া, নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রিন্সিপাল সেক্রেটারি এবং ক্রিমিনাল ইনভেস্টিগেশন ডিপার্টমেন্ট-সিআইডি’র এডিশনাল ডিরেক্টর জেনারেলকে প্রত্যাহারের নির্দেশ দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, এই প্রথম ভারতের শক্তিশালী নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে সংবিধানের ৩২৪ ধারা ব্যবহার করা হয়েছে। ধারা মোতাবেক, নির্বাচনী প্রচারণাকে সীমিত করার স্বার্থে কমিশনকে তদারক, নির্দেশনা ও নির্বাচনকে নিয়ন্ত্রিত করার ক্ষমতা প্রদান করা হয়েছে।

এদিকে, নির্র্বাচন কমিশনের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে একে তাদের অভিযোগের পক্ষে কমিশনের সমর্থন বলে মন্তব্য করে বিজেপি। তাদের অভিযোগ ছিলো, বাংলায় একটি অরাজক পরিস্থিতি বিদ্যমান। অন্যদিকে, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর প্রতিক্রিয়ায় সিদ্ধান্তটিকে অনৈতিক, অসাংবিধানিক, অগণতান্ত্রিক, ও পক্ষপাতদুষ্ট বলে অভিহিত করেছেন। একইসাথে, এর মধ্যদিয়ে বাংলার জনগণকে ‘অপমান’ করা হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

মমতা বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনের এই সিদ্ধান্ত বিজেপি’র জন্য একটি আকর্ষণীয় উপহার। কেননা, মোদী বৃহস্পতিবার বাংলায় দু’টি জনসভায় ভাষণ দেবেন এবং যখন তার প্রচারণা শেষ হবে তখনই প্রচারণার সময়সীমাও শেষ হয়ে যাবে।’




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]