চলতি অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসে এডিপি বাস্তবায়নের হারদাঁড়িয়েছে সংশোধিত এডিপি’র ৫৪ দশমিক ৬৩ শতাংশ

আমাদের নতুন সময় : 19/05/2019

সোহেল রহমান : আগামী অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচী (এডিপি)-তে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, দারিদ্র্য বিমোচন, মানব সম্পদ উন্নয়ন ও কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টিÑ এই চারটি বিষয়ে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। এছাড়া নতুন এডিপি-তে এলাকা বা অঞ্চল ভিত্তিক সুষম উন্নয়নের লক্ষ্যে গৃহীত প্রকল্পগুলোতে বরাদ্দ নিশ্চিত করা হবে। প্রসঙ্গত, ইতিমধ্যে আগামী অর্থবছরের নতুন এডিপি’র খসড়া চূড়ান্ত করা হয়েছে। আগামী মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠেয় ‘জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদ’ (এনইসি)-এর সভায় এটি চূড়ান্ত অনুমোদন দেয়া হবে।

চলতি অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসে (জুলাই ২০১৮-এপ্রিল ২০১৯) এডিপি বাস্তবায়নের হার দাঁড়িয়েছে সংশোধিত এডিপি’র ৫৪ দশমিক ৬৩ শতাংশ। আলোচ্য সময়ে মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলো  মোট ৯৬ হাজার ৪৯৩ কোটি টাকা ব্যয় করেছে। এর আগের অর্থবছরে একই সময়ে সংশোধিত এডিপি বাস্তবায়নের পরিমাণ ছিল ৫২ দশমিক ৪২ শতাংশ। ওই সময় ব্যয় হয়েছিল ৮২ হাজার ৬০৩ কোটি টাকা।

আগামী অর্থবছরে এডিপি-তে মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলোর মোট চাহিদার পরিমাণ ছিল ২ লাখ ৫৩ হাজার ২১ কোটি টাকা। এর বিপরীতে স্বায়ত্বশাসিত সংস্থার নিজস্ব অর্থায়ন ছাড়া নতুন এডিপি’র আকার নির্ধারণ করা হয়েছে ২ লাখ ২ হাজার ৭২১ কোটি টাকা। এটি চলতি অর্থবছরের মূল এডিপি থেকে ৩৫ হাজার ৭২১ কোটি টাকা বেশি। শতকরা হিসেবে আকার বেড়েছে ১৭ দশমিক ১৮ শতাংশ। চলতি অর্থবছরের মূল এডিপি’র আকার ধরা হয়েছিল ১ লাখ ৭৩ হাজার কোটি টাকা। সংশোধিত এডিপি-তে এটি কমে দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ৬৭ হাজার টাকা।

নতুন চূড়ান্ত খসড়া এডিপি-তে খাতওয়ারি বরাদ্দে পরিবহন খাত-কে সর্বোচ্চ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন, পদ্মা সেতু ও পদ্মা সেতুতে রেল সংযোগ প্রকল্পের গুরুত্ব বিবেচনায় পরিবহন খাতে ৫২ হাজার ৮০৫ কোটি ৬৯ লাখ টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে, যা মোট এডিপি’র ২৬ দশমিক ০৫ শতাংশ। বিদ্যুৎ খাতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বরাদ্দ ধরা হয়েছে ২৬ হাজার ১৭  কোটি ১৩ লাখ টাকা (এডিপি’র ১২ দশমিক ৮৩ শতাংশ); ভৌত পরিকল্পনা, পানি সরবরাহ ও গৃহায়ণ খাতে তৃতীয় সর্বোচ্চ বরাদ্দ ধরা হয়েছে ২৪ হাজার ৩২৪ কোটি টাকা (এডিপির ১২ শতাংশ), শিক্ষা ও ধর্ম খাতে ২১ হাজার ৩৭৯ কোটি ১২ লাখ টাকা, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণসহ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতে ১৭ হাজার ৫৪১ কোটি ২৬ লাখ টাকা, গ্রামীণ অর্থনীতিতে গতিশীলতা আনা ও কর্মসংস্থান বাড়াতে পল্লী উন্নয়ন ও পল্লী প্রতিষ্ঠান খাতে ১৫ হাজার ১৫৭ কোটি ৪০ লাখ টাকা, স্বাস্থ্য, পুষ্টি, জনসংখ্যা ও পরিবার কল্যাণ খাতে ১৩ হাজার ৫৫ কোটি ৪৭ লাখ টাকা এবং কৃষি খাতে ৭ হাজার ৬১৫ কোটি ৯৩ লাখ টাকা বরাদ্দ ধরা হয়েছে।

 

 

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]