নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায় সারাদেশে বুদ্ধ পূর্ণিমা পালিত

আমাদের নতুন সময় : 19/05/2019

সূজন কৈরী : ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও উৎসাহ উদ্দীপনায় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কড়া নিরাপত্তায় রাজধানীসহ সারাদেশে শনিবার বুদ্ধ পূর্ণিমা পালিত হয়েছে। বৌদ্ধ বিহারগুলোতে প্রদীপ প্রজ্বলন, শান্তি শোভাযাত্রা, ধর্মীয় আলোচনা সভা, প্রভাত ফেরি, সমবেত প্রার্থনা, আলোচনা সভা ও বুদ্ধ পূজা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও মানব জাতির শান্তি ও মঙ্গল কামনায় বিশেষ প্রার্থনা করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে শনিবার সকালে রাজধানীর সবুজবাগ, বাসাবোর ধর্মরাজিক বৌদ্ধ মহাবিহারে প্রভাত ফেরি ও শান্তি শোভাযাত্রার আয়োজন করে বাংলাদেশ বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘ। এতে অংশ নেন বুদ্ধ ভক্তরা। এছাড়া রাঙ্গামাটি, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, সিলেটেও নানা আয়োজনে দিনটি উদযাপন করেন বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা।

বান্দরবান প্রতিনিধি এবি নয়ন জানান, বান্রবানে বৌদ্ধ পূজা, শোভাযাত্রা, প্রদীপ প্রজ্জলন, সমবেত প্রার্থনার আয়োজন করা হয় বৌদ্ধ তীর্থস্থানগুলোতে। বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের প্রধান এই ধর্মীয় উৎসব নিয়ে জেলার ধর্মীয় স্থাপনাগুলোতে নেয়া হয় নিñিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

সকালে বান্দরবান রাজবাড়ি থেকে একটি শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উজানিপাড়া রাজগুরু মহা বৌদ্ধ বিহার প্রাঙ্গনে গিয়ে শেষ হয়। এতে বিভিন্ন বয়সের নারী-পুরুষ বিভিন্ন ধরনের পাত্রে চন্দন জল, ফুল, জাম পাতা এবং বৃক্ষ সজ্জিত টাকা নিয়ে শোভাযাত্রায় অংশ নেয়। পরে উজানিপাড়া রাজগুরু মহা বৌদ্ধ বিহারে সমবেত প্রার্থনায় মিলিত হয়।

রাঙামাটি প্রতিনিধি হারুনুর রশীদ জানান, শনিবার রাঙামাটির রাজবন বিহারসহ জেলার বিভিন্ন বৌদ্ধ মন্দিরে দিনব্যাপী কর্মসূচি পালিত হয়। এ উপলক্ষে রাঙামাটি রাজবন বিহারে ধর্মীয় শোভাযাত্রা, বুদ্ধপূজা, পিন্ডদান, প্রাতঃরাশ, পঞ্চশীল গ্রহণ, সংঘদান, অষ্টপরিষ্কার দান, বুদ্ধমূর্তি দান, প্রদীপ পূজাসহ দিনব্যাপী কর্মসূচি পালিত হয়েছে। এতে সমাগম ঘটে হাজারো পুণ্যার্থীর।

এর আগে সকাল সাতটায় রাজবন বিহার উপাসক-উপাসিকা পরিষদের উদ্যোগে একটি বর্ণাঢ্য ধর্মীয় শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ কার্যালয়ের সামনে থেকে শুরু হয়ে শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে রাজবন বিহারে গিয়ে শেষ হয়।

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি সুজন বড়–য়া জানান, জেলা সদর সহখাগড়াছড়ির ৯টি উপজেলায় বৌদ্ধ বিহারগুলোতে এ অনুষ্ঠান পালন করেছেন বৌদ্ধ ধর্মীবলম্বীরা। শনিবার সকাল থেকে খাগড়াছড়ির বৌদ্ধ বিহারগুলোর সামনে ছিল নিরাপত্তাবলয়। বৌদ্ধ বিহারগুলোতে পূণ্যার্থীরা পুজা দেওয়ার উদ্দ্যেশ্য সমবেত হয়। দেশ, জাতি ও মানুষের কল্যাণ কামনায় প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করে। এছাড়া ধর্মীয় রীতি অনুযায়ীি ভক্ষুসংঘকে ভক্তরা পি- দান করেন। সন্ধ্যায় প্রতিটি বৌদ্ধ বিহারে প্রজ্জলিত হয় মাঙ্গলিক প্রদীপ। উড়ানো হয় আকাশ প্রদীপ বা ফানুস বাতি।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]