মার্কসবাদীরা ব্যর্থ কেন?

আমাদের নতুন সময় : 26/05/2019

মাসুদ রানা : বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও মার্কসবাদীদের বিভিন্ন গোত্র আছে এবং প্রতিটিরই নিজস্ব ‘সমাজ বিশ্লেষণ’ আছে। বিশ্লেষণে তাদের এক গোত্রের চেয়ে আরক গোত্র সেরা এবং তা নিয়ে মারামারি ও কাটাকাটি পর্যন্ত হয়। যদিও মার্কসবাদী প্রতিটি গোত্রই নিজের বিশ্লেষণকে সঠিক ও বৈজ্ঞানিক বলে দাবি করে, তথাপি তাদের মধ্যে বিশ্লেষণের ও সিদ্ধান্তের রয়েছে বিশাল ফারাক এবং শত্রু-মিত্রের ধারণা, রণনীতি-রণকৌশলের আকাশ-পাতাল পার্থক্য। এই হচ্ছে মার্কসবাদীদের দাবিমতো বিজ্ঞান… তাও আবার ‘বিজ্ঞানের বিজ্ঞান’ (ঞযব ংপরবহপব ড়ভ ধষষ ংপরবহপবং)! বস্তুত এটি হচ্ছে ওদের অবৈজ্ঞানিকতার একটি বড় প্রমাণ। কিন্তু এরা তা মানবে না। যাক যদি প্রশ্ন করা হয় মার্কসবাদীদেরকে : সমাজ বিশ্লেষণে আপনাদের ‘বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি’টি কি? দয়া করে কি আপনাদের ‘বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি’টা আমাকে বোঝাতে পারবেন?

লক্ষ্য করুন, আমি আপনাকে সমাজ বোঝাতে অনুরোধ করিনি, আমি আপনাকে অনুরোধ করেছি আপনাদের বিখ্যাত ‘বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি’টা বোঝাতে যা ব্যবহার করে যেকোনো ব্যক্তি যেকোনো সমাজ বিশ্লেষণ করতে পারে। না চাইলেও চোখে পড়ে একেকজন মার্কসবাদী, লেনিনবাদী, স্ট্যালিনবাদী, মাওবাদী, ঘোষবাদী, জামানবাদী ফেসবুকে তোতা পাখির মতো শেখানো বুলি আউড়ে ভারি ভারি স্ট্যাটাস দেন। কখনও বলেনও না কথাগুলো কার। এমনকি উদ্ধৃতি চিহ্নও ব্যবহার করেন না কেউ। ভাবখানা এমন যে, তিনিই এ কথাগুলোর লেখক।

আমি আশা করি, এই স্ট্যাটাসদাতাদের মধ্যে কেউ যেন তার বা তাদের সমাজ বিশ্লেষণ ‘বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি’টি আমাদের সামনে বস্তুনিষ্ঠভাবে স্থাপন করেন। আর সেটি স্থাপিত হলে বিচার করে দেখা যাবে, তাদের সমাজ বিশ্লেষণের ফল সমাজের বাস্তবতার সঙ্গে মিলে কিনা। আপাত এখানে উল্লেখ করা যেতে পারে যে, কোনো রোগের চিকিৎসা করা সম্ভব নয়, যদি রোগ নির্ণয় সঠিক না হয়, আর সঠিক রোগ নির্ণয় করা সম্ভব নয়, যদি তা রোগ নির্ণয়ের বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি জানা না থাকে। বাংলাদেশের সমাজে ও রাজনীতিতে মার্কসবাদীরা কেন নির্ধারক এমনকি কোনো প্রভাবক ভূমিকাও পালন করতে পারছে না, সম্ভবত তার উত্তর শুধু তাদের ব্যক্তিগত বুদ্ধিবৃত্তিক সীমাবদ্ধতার মধ্যে নয়, বরং তাদের দাবিকৃত ‘বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি’র মধ্যে নিহিত রয়েছে। ফেসবুক থেকে

 

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]