অমিত শাহের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হওয়ায় উদ্বেগে ভারতের সংখ্যালঘুরা

আমাদের নতুন সময় : 01/06/2019

লিহান লিমা :  লোকসভা নির্বাচনে জয়ের পেছনের মূল নায়ক অমিত শাহকে ভারতের সবচাইতে সংবেদনশীল মন্ত্রণালয় স্বরাষ্ট্রের দায়িত্ব দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে অমিত এখন অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা, সীমান্ত ব্যবস্থাপনা, পুলিশ বাহিনীকে নিয়ন্ত্রণ, জম্মু-কাশ্মীর পরিস্থিতি সামলানোর মতো গুরুদায়িত্ব পালন করবেন। আরব নিউজ, রয়টার্স

অমিত যে ভারতের স্বার্থকেই সর্বাগ্রে প্রাধান্য দেবেন সেটি নিয়ে তার সমর্থকদের কোনরুপ সন্দেহের অবকাশ নেই। অমিতের এই পদপ্রাপ্তিতে বিজেপি নেতা ও সমর্থকরা উচ্ছাস প্রকাশ করলেও আতঙ্কে রয়েছেন সংখ্যালঘুরা। বিজেপি ও সরকারের সমালোচকদের প্রতি অমিত শাহের আচরণ কেমন হবে সেটি নিয়ে উদ্বেগে আছেন ভারতের উদারপন্থীরাও। বিজেপির মুখপাত্র তেজিন্দার পাল সিং ইতোমধ্যেই টুইট করেছেন, ‘কাশ্মীরে যারা পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর পাথর ছুঁড়েছে তাদের এখন ব্যাগ গোছানোর সময় এসে গিয়েছে, অফিসে এখন অমিত শাহ।’ অমিত শাহ কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলসহ আসামের বিতর্কিত নাগরিকত্ব বিল নিয়েও কট্রর অবস্থান নিয়েছেন। কয়েকদিন আগে তিনি বলেন, অবৈধ বাংলাদেশি অভিবাসীরা উইপোকার মতো ভারতীয়দের কাছ থেকে চাকরি ও অন্যান্য সুযোগ কেটে নিচ্ছে।

কট্ররপন্থী হিন্দুত্ববাদীর তকমা গায়ে লাগানো অমিত এর আগে নানা বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন। কেরালার মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ এলাকা থেকে প্রার্থীতা করার জন্য কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীকে বিদ্রুপ করেছেন তিনি। ২০০২ সালে গুজরাটে তিনি বিচারবহির্ভূত তিনটি হত্যাকা-ের নির্দেশ দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ আছে। ২০১০ সালে শাহের ওপর এক মুসলিম দম্পতিকে হত্যার অভিযোগ ওঠে, ওই বছর সুপ্রিমকোর্ট তাকে গুজরাট থেকে বহিষ্কার করে। ২০১৪ সালে তথ্য প্রমাণের অভিযোগে তার ওপর থেকে মামলা প্রত্যাহার করে নেয়া হয়। অমিতকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঘোষণা করার পর সাংবাদিক রানা আয়ুব বলেন, ‘অমিত প্রথম স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যাকে বিচারবর্হিভূত হত্যা ও চাঁদাবাজির দায়ে গ্রেপ্তার, সুপ্রিমকোর্ট কর্তৃক রাজ্য থেকে বহিস্কার করা হয়েছিলো, এই না হলে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।’ দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক অপূর্বআনন্দ বলেন, ‘আমি বিস্মিত হই নি। নির্বাচনি রায় তাদের মতো মতাদর্শের লোকগুলোকেই গ্রহণ করেছে। সন্ত্রাসী প্রজ্ঞা ঠাকুরকে আপনি নেতা মেনে নিয়েছেন, মহাত্মা গান্ধীর হত্যাকারীর প্রশংসা কারীকে আপনি গ্রহণ করেছেন।’ তবে মোদীর আস্থার জায়গায় অমিত শাহর নাম বরাবরই সবার ওপরে থেকেছে। অনেক রাজনৈতিক বিশ্লেষকই মনে করেন, ভবিষ্যতে এই অমিত শাহ-ই হবেন মোদীর উত্তরসূরি। বিজেপির এক কর্মী বলেন, মোদী ও শাহ ৩০ বছরেরও বেশি সময় ধরে রাজনীতিতে একসঙ্গে রয়েছেন। তাদের সম্পর্ক বিশ্বাসের ও অর্জনের।’সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]