সরকারের কাছে ধান বিক্রি করতে পারছে না বরিশাল বিভাগের দুই তৃতীয়াংশ চাষি

আমাদের নতুন সময় : 01/06/2019

মেহেদি হাসান : বরিশাল জেলার আগৈলঝাড়া উপজেলায় মোট ২৬ হাজার কৃষক পরিবার। এরমধ্যে মাত্র ৩৬০ কৃষক পরিবার সরকারিভাবে ২৯১ মেট্রিক টন ধান বিক্রির সুযোগ পাবেন। প্রতিজন সর্বোচ্চ ২০ মণ করে ধান সরকারের কাছে বিক্রি করতে পারবেন বলে জানিয়েছে উপজেলা প্রশাসন।

বরিশাল বিভাগের ৬ জেলার ২১ উপজেলায় একই ধরনের অভিযোগ। কৃষক জানিয়েছে, সরকারের ন্যায্যমূল্যে ধান ক্রয় কর্মসূচি কৃষকের বিশেষ উপকারে আসছে না। কারণ দুই তৃতীয়াংশ কৃষক থেকে যাচ্ছে তালিকার বাইরে। ফলে দক্ষিণাঞ্চলের কয়েক লাখ কৃষক পরিবারে ঈদের আনন্দ আসছে না।

বরিশাল সদর উপজেলার শার্ষী গ্রামের কৃষক আনোয়ার হোসেন জানিয়েছেন, সাড়ে পাঁচ একর জমিতে ধান চাষ করেছি। যা উৎপাদন হয়েছে ভালোই। কিন্তু বাজারে বিক্রি করতে গেলে দাম কম বলে। সরকারি তালিকায়ও আমাদের নাম নেই।

বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার রাম চন্দ্র দাস এ প্রতিবেদককে জানান, বরিশাল বিভাগে ধান-চাল সংগ্রহের চিত্রটা খুবই খারাপ। এই অঞ্চলে উৎপাদন বেশি হলেও সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা খুবই কম। তবে বরিশালের জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান জানিয়েছেন, সকল কৃষক যেন সরকারের কাছে ধান বিক্রি করতে পারে সেজন্য মন্ত্রণালয়ে সুপারিশ প্রেরণ করেছি।

বরিশাল বিভাগীয় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জানিয়েছে, ৬ জেলায় উৎপাদিত ধানের মাত্র ৫ হাজার ১৯ মেট্রিক টন কিনবে সরকার। এ বিভাগে এবার ৫ লাখ ৯৩ হাজার ৯৮১ মেট্র্রিক টন ধান সরকারের কাছে বিক্রি কর্মসূচির বাইরে থেকে যাচ্ছে।

বরিশাল আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক রেজা মোহাম্মদ মহসিন বলেন, খাদ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনা অনুযায়ী বরিশাল বিভাগের ছয় জেলা থেকে সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে মোট ৫ হাজার ১৯ মেট্রিক টন ধান সংগ্রহ করা হবে। এর পাশাপাশি ১৬ হাজার ৩০ মেট্রিক টন চাল সংগ্রহ করবেন তারা। একজন কৃষক সর্বোচ্চ ৭০ মেট্রিক টন ধান বিক্রি করতে পারবেন। সম্পাদনা : মুরাদ হাসান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]